হিন্দু মহাসভা ওয়েবসাইট হ্যাক করে গো -মাংসের রেসিপি!!

তিরুঅনন্তপুরম: কেরলের ধ্বংসাত্মক বন্যা আসলে গো-মাংস খাওয়ার ফল৷ কয়েক দিন আগেই অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার প্রধান স্বামী চক্রপানির এই মন্তব্য ঘিরে আলোচনার ঝড় ওঠে৷ স্বামীর মন্তব্যে বেজায় ক্ষুব্ধ হয় কেরলের বড় একটা অংশ৷ তাই প্রতিশোধ নিতেই হিন্দু মহাসভা ওয়েবসাইটটি হ্যাক করে সেই পেজে গো-মাংসের বিভিন্ন রেসিপি আপলোড করল কেরলেরই একটি সংগঠন৷ জানা যাচ্ছে, ‘কেরালা সাইবার ওয়ারিয়র’ নামে একটি দল কাজটি করে৷ রাখঢাক না রেখেই হ্যাক করা পেজে সেই দায় স্বীকারও করে দলটি৷

বন্যা বিপর্যস্ত কেরলে বিভিন্ন রিলিফ ক্যাম্প সম্পর্কিত তথ্য, ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে নানা খবর দিয়ে আসছে ‘কেরল সাইবার ওয়ারিয়র’৷ সেখানে বারবারই হিন্দুত্ববাদী সংগঠন হিন্দু মহাসভার ওয়েবসাইট কেরলের বন্যার কারণ হিসেবে, কখনও গো-হত্যা, কখনও গো-মাংস রান্না করাকে দায়ী করছে৷ স্বামী চক্রপানির মন্তব্যও বার বার দেখানো হচ্ছে৷ প্রতিবাদ জানাতেই হিন্দু মহাসভার ওয়েবসাইট হ্যাক করে সাইবার ওয়ারিয়র৷ হ্যাক করা পেজে শুধুই গো-মাংসের রেসিপি নয়, নানারকম বার্তাও দেওয়া হয়েছে৷ ‘চক্রপানি মানসিক রোগী’, ‘মানুষকে তাঁর স্বভাব দিয়ে বিচার করা উচিত খাদ্যাভ্যাস দিয়ে নয়’, এই ধরণের নানা বার্তা হ্যাক করা পেজে দেওয়া হয়েছে৷ পাশপাশি লম্বা বিফ রেসিপিও রঙিন হরফে উজ্জ্বল৷

- Advertisement -

পড়ুন:কেরলের বানভাসি মানুষের পাশে খুদে পড়ুয়ারা

কেরলের বন্যা প্রসঙ্গে চক্রপানি বলেছিলেন,‘আমি বানভাসি কেরলবাসীর পাশে দাঁড়াতে চাই, কিন্তু যাঁরা গো মাংস খান তাঁরা আমার বা আমার সংগঠনের ত্রাণ পাবেন না, ভগবান রুটি,ভাত,ডালের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন, তাও কিছু লোকের গরুর মাংস চাই, গো-হত্যা চাই, এতেই সর্বশক্তিমান রেগে গেছেন, তাই কেরল ভাসছে৷’এএনআই সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই দাবি করেছিলেন স্বঘোষিত ভগবান স্বামী চক্রপানি৷ এরপরই কেরলের তরুণ সমাজ গর্জে ওঠে৷ ফেসবুক পেজে প্রতিবাদের পালা চলে৷ অবশেষে স্বামীর ওয়েবসাইটটাই হ্যাক করে তা রান্না করা গো-মাংসের ছবিতে ভরিয়ে দিল ‘কেরল সাইবার ওয়ারিয়র’ সংগঠন৷ পাশপাশি চক্রপানিকে বার্তা, তাঁর সাহায্যের প্রয়োজন নেই, কেরল বাঁচবে ভগবানের জোরেই৷

Advertisement ---
---
-----