খারিফ প্রস্তুত, দেখা নেই নূন্যতম আর্থিক সাহায্যের

নয়াদিল্লি: চলতি বছরেই কৃষিতে নূন্যতম আর্থিক সাহায্য বা minimum support prices (MSP)- প্রকল্পে অর্থ বৃদ্ধির আশ্বাস দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী৷ প্রধান ফসলের ক্ষেত্রে আর্থিক বরাদ্দ বাড়বে বলে জানান৷ বর্ষার মরশুমে খারিফ ফসল চাষ শেষ কিন্তু কোথায় সেই MSP ? অপেক্ষায় বিভিন্ন রাজ্যের কৃষকরা৷

আর্থিক বরাদ্দ ৫০ শতাংশ বৃদ্ধির আশ্বাস দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী৷ এদিকে বর্ষার মধ্যেই প্রায় ২২,১১৫.৯ লাখ হেক্টর খারিফ ফসল প্রস্তুত৷ উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে খারিফ চাষ প্রায় শেষের পথে৷ অথচ এখনও দেখা নেই বর্ধিত MSP-র৷ কৃষি মন্ত্রক সূত্রে খবর, MSP -কে বিস্তৃত করতে চাইছে কেন্দ্র৷ নীতি(NITI ) আয়োগের আইন মেনে নূন্যতম আর্থিক সাহায্য প্রকল্পকে বেসরককারি সংস্থাগুলির জন্য প্রযুক্ত করার পরিকল্পনা চলছে৷ এপ্রিল মাসেই রাজনাথ সিংয়ের তত্ত্বাবধানে বিষয়টি ছাড়পত্র পায়৷ তাই, MSP -র আর্থিক বরাদ্দের ঘোষণা অনেকটাই দেরিতে হয়৷ সেই কারণেই আর্থিক বরাদ্দা বৃদ্ধি এখনও বাস্তবায়ন করা যায়নি৷

বুধবারই MSP- নিয়ে বৈঠক করে কৃষি মন্ত্রক৷ MSP নিয়ে বেশ কিছু ভুল ব্যখ্যা হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে৷ মূলত, বিভিন্ন রাজ্য ‘বিশেষ মর্যাদা’ পাওয়ার চেষ্টায় রয়েছে৷ সেই সমস্ত রাজ্যের কৃষির অবস্থা দেখেই MSP বাস্তবায়নের পথ প্রশস্ত হবে৷ কিন্তু, বেশিরভাগ কৃষি সংগঠনগুলির ক্ষোভ, নিয়ম মেনে খারিফ চাষ বেশ কয়েকটি রাজ্যে শেষ, তারা কেন আর্থিক সাহায্য পেল না? প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা অনুসারে, জুন মাসের ২ সপ্তাহের মাথায় MSP-র টাকা পাবেন কৃষকরা৷ জুন মাস শেষ হতে আর একদিন বাকি, এখনও অধরা আর্থিক বরাদ্দা৷

- Advertisement -

মোট ২৩ টি প্রধান চাষের উপর MSP লাগু৷ এর মধ্যেই রয়েছে খারিফ শস্য৷ কৃষি বিশেষজ্ঞদের মত, আর্থিক বরাদ্দ দেরিতে হলে ক্ষতির মুখে পড়বেন চাষিরা৷ কারণ, MSP-র আশ্বাসেই চাষে খরচ করা হয়েছে৷ অথচ, নূন্যতম আর্থিক সাহায্যের বর্ধিত পরিমান পাওয়া তো দূরের কথা, কোনওরকম অর্থই চাষিরা পাননি৷ যা বিজেপি সরকারের বিরাট বিফলতা৷ লোকসভা নির্বাচনের আগে এই ধরণের আশ্বাস করাটাই অযৌক্তিক বলে মনে করা হচ্ছে৷ আর্থিক বাজেটের উপরও প্রভাব ফেলতে পারে এই MSP-র বরাদ্দ বৃদ্ধির ঘোষণা৷ সেদিকেও নজর দেওয়া উচিত ছিল বলে মত বিশেষজ্ঞদের৷ আপাতত, বর্ধিত নয় নূন্যতম অর্থের দিকেই তাকিয়ে খারিফ উৎপাদক কৃষকরা৷

Advertisement ---
-----