একডালিয়া এভারগ্রিনের জমজমাটি খুঁটি পুজো

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: দুর্গা পুজোর এখনও বাকি দু’মাস৷ কিন্তু তার আগে থেকেই শুরু উৎসবের পালা৷ সৌজন্যে খুঁটি পুজো৷ হইহুল্লোর খওয়া দাওয়া সব মিলিয়ে যেন বাঙালির সেরা উৎসবের রিহার্সাল৷ রবিবার জমজমাটি খুঁটি পুজো হয়ে গল শহরের অন্যতম নামি একডালিয়া এভারগ্রিনের৷

এবার ৭৬ বছরে পদার্পণ করবে দক্ষিণ কলকাতার এই ঐতিহ্যমণ্ডিত বারোয়ারি পুজোটি৷ প্রতিবছরই মাতৃ প্রতিমা সেজে ওঠে সাবেকি রূপে৷ কিন্তু চমক থাকে মণ্ডপ সজ্জায়৷ এবার দাক্ষিণাত্যের একটি মন্দিরের আদোলে সেজে উঠবে একডালিয়ার দুর্গা মণ্ডপ৷ দেখতে লাগবে অনেকটা সোনার পিরামিডের মতো৷ অন্যবার ৮০ ফুট হলেও এবার মণ্ডপের উচ্চতা আরও বাড়বে৷ জানালে পুজো উদ্যাক্তা তথা রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়৷

খুঁটি পুজো উপলক্ষে এদিন আনন্দের জোয়ার একডালিয়া এভারগ্রিনের বাসিন্দাদের৷ অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্য প্রধান অথিতি হয়ে উপস্থিত ছিলেন অনুষ্ঠানে৷ একগাল হাসি নিয়ে তিনি জানালেন, ‘‘খুঁটি পুজোয় আসতে তাঁর ভালোই লাগে৷ খুঁটি পুজোই তো জানান দেয় পুজো আসছে৷ মনটা যেন হঠাৎ করেই ভালো হয়ে যায়৷’’

- Advertisement -

এদিনের পুজো শেষে আট থেকে আশি সবাই মেতেছিল সেল্ফির নেশায়৷ আবার কেউ কেউ তারই মধ্যে বসে করে ফেললেন পুজোর পাঁচ দিনের পরিকল্পনা৷ একডালিয়ার বাসিন্দা পিউ কর্মকার এবার পুজোয় কলকাতায় থাকবেন না৷ ঘুরতে যাবেন কেরালায়৷ তাই ঢাকের শব্দেই আগাম আস্বাদন করে রাখলেন দুর্গা পুজোর আবহ৷ দুপুর গড়িয়ে বিকেল, ছিল মধ্যাহ্নভোজের আয়োজনও৷ গত দাশমীর পর আবার সবাইকে একসঙ্গে কাছে পাওয়ার আনন্দ৷

সকাল দেখলে যেমন বোঝা যায় পুরো দিনটা কেমন যাবে, তেমনই এদিনের হুল্লোড় দেখে বোঝা যাচ্ছে পুজোয় নিজেদের মেলে ধরতে প্রস্তুত একডালিয়া এভারগ্রিন৷ উদ্যোক্তা সুব্রত মুখোপাধ্যায় বললেন, ‘‘বাসিন্দাদের এই আনন্দই তো পুজোর প্রেরণা’’ তবে এই সুযোগে অন্য পুজো উদ্যাক্তাদের খোঁচা দিতেও ছাড়লেন না তিনি৷ হাসি মুখে খানিকটা চ্যালেঞ্জের সুরে বললেন, ‘‘একডালিয়া অন্যান্যদের মতো ব্যারিকেট করে ভিড় বাড়ায় না৷’’

দুর্গা পুজো যদি ফাইনাল হয়, তবে খুঁটি পুজোতেও বড় বড় ক্লাবগুলির একে অপরকে টেক্কা দেওয়ার চেষ্টা থাকে৷ হাজরও মজার মধ্যেও তাই যেন যুদ্ধ যুদ্ধ গন্ধ৷ তবে তাতে বারুদ নেই৷ রয়েছে ভরা ভরা আনন্দ৷

Advertisement ---
---
-----