‘মানব-তিরে’ ঘায়েল দুই সন্দেহভাজন

লন্ডন: ইংল্যান্ডের সারে প্রদেশের চ্যাপেল গ্রাম। চলছিল ‘ইস্টার এগ হান্টিং’। হঠাৎ করেই মাথার ওপর হেলিকপ্টার উড়ে বেড়াতে দেখে আনন্দে লাফিয়ে উঠেছিল সেখানকার শিশুরা। কিন্তু সেই আনন্দই বদলে গেল রোমহর্ষক অ্যাডভেঞ্চারে। হেলিকপ্টারটি বেশ কিছুক্ষণ আকাশে ওড়ার পর গ্রামবাসীরা দেখলেন, দুই ব্যক্তি হঠাৎ করে ছুটে গ্রাম পেরিয়ে গেল। গ্রামবাসীদের বুঝতে আর কিছুই বাকি রইল না, যে দুই সন্দেহভাজন পুলিশকে দেখে পালিয়ে যাচ্ছে। তাঁরা বুঝলেন, হেলিকপ্টারটি তাঁদের মনোরঞ্জনের জন্য আসেনি, বরং পুলিশ এসেছে ওই অপরাধীদের খোঁজ করতে। হেলিকপ্টারটি অনেকটা উচ্চতায় থাকায় পুলিশ আধিকারিকরা সন্দেহভাজনদের চিহ্নিত করতে পারছিল না। তখনই গ্রামের শিশুদের দেখা গেল এক অভিনব উপায় খুঁজে বের করতে। শিশুরা মাটিতে শুয়ে পড়ল একটি তিরের আকারে। পুলিশ আধিকারিকরা বুঝতে পারলেন কোন দিকে গিয়েছে ওই দুই সন্দেহভাজন। আসলে ওই মানবনির্মিত তির নির্দেশ করছিল তারা কোন দিকে গিয়েছে। অবশেষে ওই শিশুদের উপস্থিত বুদ্ধির দৌলতেই ধরা পড়ল দুই সন্দেহভাজন।

গ্রামবাসীদের ধন্যবাদ জানাতে পুনরায় গ্রামে ফিরে এলেন পুলিশ আধিকারিকরা। তাঁদের সঙ্গে ‘ইস্টার এগ হান্টিং’ এ মেতে উঠলেন তাঁরাও। এক বিবৃতিতে ন্যাশনাল পুলিশ এয়ার সার্ভিস আধিকারিক পল সশন জানিয়েছেন, ‘এটা ঠিক যেন ইনিড ব্লাইটনের গল্পের বইয়ের পাতা থেকে উঠে আসা অ্যাডভেঞ্চার!’

Advertisement
---