শ্রীনগর: শহিদ ঔরঙ্গজেবের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারামন৷ এক সংবাদ সংস্থাকে তিনি জানান, শহিদ ঔরঙ্গজেবের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছেন তিনি এবং সেই সঙ্গে এও বলেন, সমগ্র দেশের জন্য অনুপ্রেরণা শহিদ সেনার পরিবার৷

প্রসঙ্গত, সপ্তাহের প্রথমদিকে পুঞ্চে সালানি গ্রামে গিয়ে শহিদ সেনার পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত৷ ৪৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের রাইফেলম্যান ঔরঙ্গজেব ইদের দিন বাড়ি আসার সময় অপহৃত হন৷ মেজর রোহিত শুক্লার দলের সদস্য ছিলেন তিনি৷ অপহৃত সেনাকে হত্যার আগে তার ওপর করা অত্যাচার ভিডিও রেকর্ডিংও করে জঙ্গিরা৷ যা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে আসতেই আরও উত্তাল হয়ে ওঠে দেশ৷ সরকারকে বদলা নেওয়ার সময় দেন শহিদ শহিদ সেনার বাবা তথা প্রাক্তন সেনা হানিফ। এমনকী প্রয়োজনে নিজেরাই বদলা নেবে বলে হুঁশিয়ারি দেন ঔরঙ্গজেবের ভাই।

Advertisement

পড়ুন: ইদ শেষেই তালিবানি হামলায় ৩০ আফগান সেনার মৃত্যু

এদিকে রমজান মাস শেষের দিনগুলিতে জঙ্গি কার্যকলাপ বহুলাংশে বেড়ে যায়৷ রাইফেলম্যান ঔরঙ্গজেবকে অপহরণ করে খুন এবং রাইজিং পত্রিকার সম্পাদক ও সাংবাদিক সুজিত বুখারিকে জঙ্গিরা নির্মম হত্যার পর কেন্দ্র আর অস্ত্রবিরতির মেয়াদ বাড়ানোর ঝুঁকি নিতে চায়নি৷

জম্মু ও কাশ্মীরে জোট সরকারে দলের সব বিধায়ককে মঙ্গলবার হঠাৎ করেই দিল্লিতে বৈঠকে ডাকেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। রাজধানীতে হাজির হতে বলা হয় তাঁদের সবাইকে। সদ্য জম্মু ও কাশ্মীরে রমজান শেষ হতেই সংঘর্ষবিরতি বা জঙ্গি দমন অভিযান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে কেন্দ্র। এই প্রেক্ষাপটে বিজেপি সভাপতির দলীয় মন্ত্রী, শীর্ষ নেতাদের জরুরি তলব ঘিরে তীব্র কৌতূহল, জল্পনা তৈরি হয়। তারপরেই জম্মু ও কাশ্মীরের জোট সরকার থেকে সমর্থন তুলে নেয় বিজেপি। পিডিপি -র সঙ্গে জোট ছিন্ন করার কথা জানিয়ে দেয় ভারতীয় জনতা পার্টি। স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, দেশের স্বার্থে কোনও ভাবেই সংঘর্ষ বিরতি মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। এরপরেই রাজভবনে যান মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি। রাজ্যপালের সঙ্গে কথা বলে মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দেন মেহবুবা মুফতি।

----
--