মোদী সরকারের বিরুদ্ধে রাস্তায় কৃষক-শ্রমিক, স্তব্ধ রাজধানী

নয়াদিল্লি: সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে বুধবার সকালেই রাস্তায় নামল কৃষক-শ্রমিকরা৷ এমন প্রতিবাদ নতুন না হলেও, সরকারের বিরুদ্ধে ৫ সেপ্টেম্বরের এই বিক্ষোভ মিছিল থেকে এক বড়সড় বার্তা পৌঁছতেই রাজধানীর রাস্তায় নেমেছে কৃষকরা৷

বুধবার সকাল থেকেই রামলীলা ময়দান থেকে শুরু করে পার্লামেন্ট পৌঁছয় কৃষকদের এই ব়্যালি৷ যার জেরে রাজধানীর সড়ক পথে যানজট সৃষ্টি হয়৷ কার্যত বেশ কিছু রাস্তায় যান চলাচল স্তব্ধ বলে জানা গিয়েছে৷ এই মিছিলে থাকা কৃষকদের মতে, নির্বাচন আসতে যেতে থাকে৷ কিন্তু কৃষক, শ্রমিক, দরিদ্রদের নিয়ে সরকারের নীতিতে বদল প্রয়োজন৷

পড়ুন: মমতাকে আরও পিছনে ফেলে ‘প্রধানমন্ত্রী’ পদে ফের মোদী

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, এই প্রথমবার রাজধানীর রাস্তায় শ্রমিক, কৃষক, ভূমিহীন কৃষক, চাকুরেরা নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে নেমেছে৷ ৫ সেপ্টেম্বর রাজধানীর রাজপথে সিটু, সারা ভারত কৃষক সভা, সারা ভারত কৃষিকর্মী সংগঠনের তরফ থেকে ওই পদযাত্রায় কয়েক হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করবে বলে আগেই জানা গিয়েছিল৷ বাসস্থান, কর্মসংস্থান, ভূমিহীনদের জমি, শ্রমিক আইনের লঘুকরণ, জাতীয় সম্পত্তি বেসরকারিকরণে না — এইসব বিভিন্ন দাবিতে মাইলের পর মাইল Mazdoor Kisan Sangharsh Rally তে হাঁটার কথা ছিল খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষের৷

মোদী সরকারের নিও-লিবারাল পলিসি, দেশ বিরোধী কাজকর্ম, ধর্মীয় মেরুকরণ, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে দেশের সুরক্ষার কথা মনে না রেখে অনভিজ্ঞ নির্মাতাকে দায়িত্ব দেওয়ার মতো সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ওই মিছিল থেকে আওয়াজ উঠবে বলেও জানানো হয়েছিল৷

পড়ুন: মাঝেরহাট ব্রিজ: সমবেদনা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর

প্রতিবাদীদের মতে, মোদী জমানায় সাধারণ মানুষের বেঁচে থাকা দায়৷ খেটে খাওয়া মানুষের কাজ নেই৷ আবার জিনিসপত্র, পেট্রোল-ডিজেলের দাম ঊর্ধ্বমুখী, চিকিৎসা ও শিক্ষার খরচ বাড়ছে দিনে দিনে৷ সাধারণ মানুষকেই আন্দোলন করতে পথে নামতে হবে৷ ভারতের প্রতিটি শহরেই ছড়িয়ে দিতে হবে আন্দোলনের অভিমুখ৷

বুধবারের এই কৃষক ব়্যালির আয়োজন করে CITU, AIKS, AIAWU. তবে এই ব়্যালিতে যানজট এড়াতে পথ নির্দেসিকা দিয়েছে দিল্লি পুলিশ-

Advertisement
---