মুম্বই: আবেগপ্রবণ শুভেচ্ছাবার্তা৷ সঙ্গে বরাবরের মতো স্বভাবসুলভ রসিকতা৷ দু’বারের আইপিএলজয়ী কলকাতা নাইট রাইডার্সের প্রাক্তন অধিনায়ককে সোশ্যাল মিডিয়ায় এভাবেই অবসর জীবনের শুভেচ্ছা জানালেন শাহরুখ খান৷

মঙ্গলবারই নিজের ক্রিকেট কেরিয়ারে ইতি টানার কথা ঘোষণা করেছেন গম্ভীর৷ সঙ্গে নতুন ইনিংস শুরুর ইঙ্গিতও দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ কেকেআর মালিক হিসাবে কিং খান কলকাতা ফ্র্যাঞ্চাইজিকে অসাধারণ কিছু মুহূর্ত উপহার দেওয়া গম্ভীরকে আবসরোত্তর জীবনের সৌজন্য শুভেচ্ছা জানাতে ভোলেননি৷ টুইটারে মন ছুঁয়ে যাওয়া বার্তার শেষে গম্ভীরকে তাঁর নামের মতো গম্ভীর না থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বাদশা৷ শাহরুখের মতে, গম্ভীরের আর একটু হাসা উচিত৷

আরও পড়ুন: ‘ইট ইস ওভার গৌতি’, অবসরে আবেগঘন গম্ভীর

টুইটারে শাহরুখ লেখেন, ‘তোমার ভালোবাসা ও নেতৃত্বের জন্য ধন্যবাদ ক্যাপ্টেন৷ তুমি একজন বিশেষ ব্যক্তিত্ব৷ ঈশ্বর তোমাকে সর্বদা খুশি রাখুন৷ তবে তোমার আর একটু বেশি হাসা উচিত৷’

টুইটারে শাহরুখ লেখেন, ‘তোমার ভালোবাসা ও নেতৃত্বের জন্য ধন্যবাদ ক্যাপ্টেন৷ তুমি একজন বিশেষ ব্যক্তিত্ব৷ ঈশ্বর তোমাকে সর্বদা খুশি রাখুন৷ তবে তোমার আর একটু বেশি হাসা উচিত৷’

ফিরোজ শাহ কোটলায় রঞ্জি ট্রফিতে অন্ধপ্রদেশের বিরুদ্ধে ম্যাচটাই হবে গম্ভীরের শেষ প্রথমশ্রেণির ম্যাচ৷ তার পরই ব্যাট-প্যাড তুলে রাখবেন বাঁ-হাতি ওপেনার৷ দেশের হয়ে ৫৮টি টেস্ট, ১৪৭টি ওয়ান ডে এবং ৩৭টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন গম্ভীর৷ তিন ফর্ম্যাট মিলিয়ে ১০ হাজারের বেশি আন্তর্জাতিক রান রয়েছে তাঁর৷

আরও পড়ুন: ক্রিকেটকে গুডবাই জানালেন ভারতীয় তারকা

টেস্ট ক্রিকেটে ৪১৫৪, ওয়ান ডে ক্রিকেটে ৫২৩৮ এবং আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে ৯৩২ রান সংগ্রহ করেছেন গম্ভীর৷ দেশের হয়ে শেষবার খেলেছেন ২০১৬ ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে৷ দু’টি বিশ্বকাপজয়ী (২০০৭ টি-২০ এবং ২০১১ বিশ্বকাপ) ভারতীয় দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন গম্ভীর৷

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে গম্ভীরের অভিষেক হয়েছিল ২০০৩ ঢাকায় বাংলাদেশের বিরুদ্ধে৷ ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ওয়াংখেড়ের বাইশ গজে তাঁর ৯৭ রানের দুরন্ত ইনিংস ২৮ বছর পর ভারতকে দ্বিতীয়বার ওয়ান ডে বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ এনে দেয়৷ ১৯৮৩ কপিল দেবের পর ২০১১ ধোনির নেতৃত্বে বিশ্বকাপ জেতে ভারত৷

আরও পড়ুন: আজহারের ইডেন বেল বাজানো নিয়ে ক্ষোভ গম্ভীরের

তার চার বছর আগে ওয়ান্ডারার্সে ২০০৭ টি-২০ বিশ্বকাপ ফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ৭৫ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলে ধোনির হাতে ট্রফি তুলে দিতে বড় ভূমিকা নিয়েছিলেন দিল্লির এই বাঁ-হাতি৷ রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে পাকিস্তানকে হারিয়ে প্রথম টি-২০ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত৷

--
----
--