আজ মেয়ো রোডে মমতার বক্তব্যের আগে যেসব বিষয়গুলি নজর রাখবেন

দেবময় ঘোষ, কলকাতা: আজ মেয়ো রোডে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসে বক্তব্য রাখতে আসবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ অন্যান্য প্রধান বক্তাদের মধ্যে যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ মেয়ো রোডের এই সভার ব্যাপারে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য Kolkata24x7-এর পাঠকদের জেনে রাখা প্রয়োজন৷

১. এই প্রথম তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস অনুষ্ঠিত হবে কোনও সভাপতি বা সভানেত্রী ছাড়াই৷ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভানেত্রী জয়া দত্ত এখন পদে নেই৷ কলেজে ভর্তির সময় বেনজির দুর্নীতি এবং তোলাবাজির অভিযোগের ভাগীদার তিনিও, তা দল তাঁকে স্পষ্ট জানিয়েছে৷ তিনি যে আবার তাঁর পদে ফিরে আসবেন সে বিষয়ে এখনও কোনও নিশ্চয়তা নেই৷

২. মেয়ো রেডোর চারপাশজুড়ে বড় বড় প্ল্যাকার্ড৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘দিদি’ সম্বোধন করে ছাত্র নেতা নেত্রীরা ওই প্ল্যাকার্ডে বলতে চেয়েছেন, দিদি যা বলবেন, তাঁরা অক্ষরে-অক্ষরে পালন করবেন৷ দিদিকে সভার স্থল থেকেই তুষ্ট করার মরিয়া প্রচেষ্টা চালালো হয়েছে৷ প্রশ্ন উঠেছে, ক্ষুব্ধ মমতা, তৃণমূল ছাত্র পরিষদের অস্তিত্ত্ব রাখবেন তো? অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের যুব তৃণমূলের সঙ্গে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ মিলে যাবে না তো?

- Advertisement -

৩. মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ২১ জুলাইয়ের মতো এই সভারও মূল দায়িত্বে থাকবেন৷ ২১ জুলাই সভাকে মহা সাফল্যের পথে একক প্রচেষ্টায় নিয়ে গিয়েছিলেন অভিষেক৷ এই এই জমায়েতকেও তিনিই সাফল্যের মুখ দেখাবেন বলে আশা করছে তাঁর দল৷ ঠিক সেই সময় যখন তৃণমূল ছাত্র পরিষদ তার প্রতিষ্ঠা দিবসে এক সন্ধিক্ষণেক মুখে দাঁড়িয়ে৷ মাথার উপর সভাপতি বা সভানেত্রী নেই৷

৪. এই সভা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের কলকাতার জনসভার পালটা সভা হিসেবেই দেখা হবে৷ অমিত তৃণমূল কংগ্রেসকে বামলা থেকে উপড়ে ফেলার বার্তা দিয়ে দিয়েছিলেন৷ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাক্যবাণে বিদ্ধ করার চেষ্টা করেছিলেন৷ পিসি-ভাইপো জুটি আজ অমিতকে পালটা দিতে প্রস্তুত৷

৫. মেয়ো রোডের ১২ ফুট বাই ১২ ফুট মঞ্চে দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রের শাসক বিজেপি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রে মোদী এবং অমিত শাহকে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচন নিয়ে কড়া চ্যালেঞ্জ জানাবেন৷ জাতীয় নাগরিকপঞ্জিকরণ বা এনআরসি-ইস্যু কিংবা দেশজুড়ে অশান্ত পরিবেশ এবং সাম্প্রদায়িত হানাহানি, মমতার বক্তব্যের বিষয় হতে যাচ্ছে৷

৬. রাজ্যে তৃণমূলকে পঞ্চায়েত নির্বাচনে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছে বিজেপি৷ রাজ্য জুড়ে গ্রামীণ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হিংসার ঘটনা ঘটেছে৷ সেই সব কিছুই উঠে আসবে তাঁর বক্তব্যে৷ অপেক্ষা কখোন দুপুর ১ টা বাজবে৷

Advertisement ---
-----