বিদেশের মাটিতে আমাদের ভয়ডরহীন হয়ে শুরু করা উচিত: কোহলি

সাউদাম্পটন:  চুতুর্থ ইনিংসে ব্যাটিং বিপর্যয় যেন মহামারীর আকার নিয়েছে ভারতীয় দলে। প্রথম ইনিংসে এগিয়ে থেকেও হাতছাড়া হচ্ছে একের পর এক ম্যাচ। ব্যতিক্রম হল না সাউদাম্পটন টেস্টও। সিরিজ হারকে ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি জানালেন, ‘চালকের আসনে থেকেও আমরা অ্যাডভান্টেজ নিতে ব্যর্থ। আর সেই সুযোগেই প্রতিপক্ষ বারংবার বাজিমাৎ করে যাচ্ছে। আমরাই প্রতিপক্ষকে ম্যাচে ফিরে আসার সুযোগ করে দিচ্ছি। এই ট্রমা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে দলকে।’

আরও পড়ুন:একাই আট উইকেট নিলেন ভারতীয় পেসার

দক্ষিণ আফ্রিকাতেও ০-২ পিছিয়ে পড়ে সিরিজে কামব্যাক করেছিল কোহলির ভারত। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। চলতি ইংল্যান্ড সিরিজেও বদলালো না চিত্রটা। ০-২ পিছিয়ে পড়ে নটিংহ্যাম টেস্ট জিতে দুরন্ত কামব্যাক করেছিল টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু সাউদাম্পটন টেস্টে হারের ফলে ফের বিদেশের মাটিতে সিরিজ হারের সাক্ষী রইল ভারত। হতাশ ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

- Advertisement DFP -

জয়ের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েও কেন এভাবে বারবার ব্যর্থ হচ্ছে দল? উত্তরে ভারত অধিনায়ক জানালেন, ৫০-৫০ পরিস্থিতিতে চাপের মাথায় ম্যাচ বের করে আনা একটা আর্ট। জয়ের সব প্রয়োজনীয় রসদ থাকলেও কঠিন পরিস্থিতি থেকে ম্যাচ বের করে আনার পন্থা খুঁজে বের করতে হবে আমাদের। তবেই বিদেশের মাটিতে সফল হওয়া সম্ভব। এবিষয়ে আমাদের আরও হোমওয়ার্ক প্রয়োজন।’

আরও পড়ুন:রান তাড়া করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে টিম ইন্ডিয়া

সিরিজে প্রথম টেস্ট থেকে ফলাফলের দিকে একবার চোখ বোলালে দেখা যাবে নটিংহ্যাম টেস্টে প্রথমে ব্যাট করে জয় তুলে নিয়েছিল ভারত। কিন্তু বাকি তিন টেস্টেই ভারতকে ব্যাট করতে হয়েছে চতুর্থ ইনিংসে। আর চতুর্থ ইনিংসে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের জড়তার সুযোগ কাজে লাগিয়েই পিছিয়ে থেকে ম্যাচ জিতে নিয়েছে ইংল্যান্ড। ভারত অধিনায়কের মতে, ‘বিদেশের মাটিতে সিরিজগুলোয় দলের উচিৎ আরও ভয়ডরহীন ভাবে শুরু করা। দল হিসেবে আমাদের আরও আগ্রাসী এবং সাহসী হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে বিদেশের মাটিতে।’

কোহলির মতে লম্বা সিরিজে পিছিয়ে গিয়েও প্রত্যাবর্তন করার প্রচুর সুযোগ থাকে। ভয়হীন ক্রিকেট খেলেই সেই সুযোগ কাজে লাগানো সম্ভব, আর সেখানেই ব্যর্থ হচ্ছি আমরা। সিরিজ হারের বিশ্লেষণ করতে বসে এই ছোটখাটো ভুলত্রুটিগুলো ছাড়া আর কোন নেগেটিভ দিক খুঁজে পাচ্ছেন না ‘বিরাট দ্য রানমেশিন’। তাঁর মতে, দলের ১১ জন ক্রিকেটারই তাঁদের সবটা দিয়ে চেষ্টা করেছে। কিন্তু আমাদের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ইংল্যান্ড সিরিজে নিজেদের সেরা হিসেবে প্রতিপন্ন করেছে।

আরও পড়ুন:ড্র’য়ে নিস্পত্তি বাঙালির ফুটবল মহাযুদ্ধ

প্রথম ইনিংসে পূজারার ইনিংসের পাশাপাশি দ্বিতীয় ইনিংসে তাঁর ও রাহানের পার্টনারশিপে একসময় ম্যাচ ছিল ভারতের হাতেই। তবু কোহলি মনে করেন প্রথম ইনিংসে আরও ৩০ থেকে ৫০ রান জরুরি ছিল। পাশাপাশি নয় উইকেট নিয়ে ম্যাচে মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছেন মঈন আলি, অথচ ব্যর্থ অশ্বিন। এবিষয়ে ভারতের দলনেতা জানিয়েছেন, ‘অশ্বিন ওঁর সেরাটা দেওয়ারই চেষ্টা করেছে এবং সঠিক জায়গায় বল রাখার চেষ্টা করে গিয়েছে। কিন্তু প্রয়োজনীয় রেজাল্ট ওঁ পায়নি।’

Advertisement
----
-----