ট্রেন্ড ভেঙে একুশেও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিই প্রাপ্তি কলকাতার

প্রতীকি ছবি

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: একুশে জুলাইতেও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিই প্রাপ্তি কলকাতার। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। বিগত বেশ কয়েক বছরের একুশের ট্রেন্ড বলছে অঝোর ধারায় বৃষ্টি। কিন্তু এবার সেই সম্ভাবনা কম। নিম্নচাপ থেকেও বর্ষায় গরমে গলদ ঘর্ম বাঙালির জন্য তেমন কোনও সুখবর দিচ্ছে না হাওয়া অফিস।

নিম্নচাপের জেরে পশ্চিমবঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা দিন দুয়েক আগেই জানিয়েছিল হাওয়া অফিস। এতেই আশার বানি খুঁজে পেয়েছিল মহানগরবাসী। অনেকেই ভেবেছিলেন নজির বজায় রেখে একুশে জুলাই থেকেই ‘আয় বৃষ্টি ঝেঁপে’ শুরু হবে কলকাতাতেও।

আরও পড়ুন: ‘ইটস কমপ্লিকেটেড’

- Advertisement -

শুক্রবার সকালে আকাশ অন্ধকার করা মেঘ আশা বাড়িয়েছিল। কিন্তু বেলা গড়াতেই হতাশা বেড়েছে। হালকা বৃষ্টি হয়ে থেমে গিয়েছে। উলটে বেড়েছে আর্দ্রতাজনিত ব্যাপক অস্বস্তি। শনিবার একুশে জুলাই এদিন নিম্নচাপের জেরে সামান্য বৃষ্টি বাড়তে পারে। তবে তা কখনই অঝোর ধারায় ভারি বর্ষণের জায়গায় পৌঁছবে না বলেই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশা উপকূল সংলগ্ন উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে। এর জেরে শনিবার কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকায় মাঝারি মাত্রায় বৃষ্টি হতে পারে। ব্যস এইটুকুই। এর চেয়ে বেশি খুশির খবর শ্রাবণেও কলকাতার জন্য অন্তত নেই। শনিবার সকাল ১২ টা পর্যন্ত এর চেয়ে বেশি কিছু সম্ভাবনাও দেখতে পাচ্ছে না বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

আরও পড়ুন: রাহুলের চোখ মারার ভিডিও নিয়ে কী বললেন প্রিয়া প্রকাশ?

হাওয়া অফিস স্পষ্ট জানিয়েছে, বেশি বৃষ্টি হবে উপকূলবর্তী এলাকাগুলিতে। রবিবারেও দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বর্ষা সক্রিয় থাকতে পারে। এই নিম্নচাপের রবিবার পর্যন্ত সমুদ্র উত্তাল থাকবে। বঙ্গোপসাগরে ঘণ্টায় ৪৫ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়ার আশঙ্কা থাকায় মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে হাওয়া অফিস।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা গনেশ কুমার দাস বলেন, “উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপটি শুক্রবার বেলার দিকে শক্তি সঞ্চয় করেছে। এরপর সেটি সুস্পষ্ট নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। পাশাপাশি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৭.৬ কিলোমিটার উপরে একটি ঘূর্ণাবর্তও রয়েছে। এটি আরও শক্তিশালী ও গভীর নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। এর জেরেই ভারি বৃষ্টি হতে পারে উপকূলবর্তী অঞ্চলে।”

আরও পড়ুন: হাসপাতালের সামনে উচ্ছেদ অভিযানে পুলিশ-প্রশাসন

দিল্লির মৌসম ভবন ওড়িশায় ভারি থেকে অতি ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে। ওড়িশা সংলগ্ন দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বৃষ্টি বেশি হবে। নিম্নচাপটি ওড়িশা হয়ে ঝাড়খণ্ডের দিকে যাবে বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা। রবিবার ঝাড়খণ্ড সংলগ্ন দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতেও ভালো বৃষ্টি হতে পারে। দক্ষিণবঙ্গে এখনও পর্যন্ত বৃষ্টির ঘাটতি আছে। এই নিম্নচাপের জেরে সামান্য ঘাটতি মিটতে পারে।

Advertisement ---
-----