সততা থাকলে অভিষেকের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিশন করুক মমতা: কুণাল

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ওঠা আর্থিক কেলেঙ্কারির তদন্তের দাবি তুললেন কুণাল ঘোষ। তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যসভার এই বিতর্কিত সাংসদ দলের মধ্যেই দুর্নীতি ইস্যুতে তদন্ত কমিশন গঠনের পক্ষে সওয়াল করেছে। তিনিও সেই কমিশনে নিজের বক্তব্য তুলে ধরবেন বলে জানিয়েছেন কুণাল ঘোষ।

‘কমিশনগেট’ আর্থিক কেলেঙ্কারিতে নাম জড়াল মমতার ভাইপো অভিষেকের

সোমবার রাতের দিকে একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের আর্থিক কেলেঙ্কারি। এবার আর দলের তাবড় নেতা নয়, খোদ দলনেত্রীর ভাইপোর নাম জড়িয়ে গিয়েছে আর্থিক কেলেঙ্কারিতে। এই বিষয়ে সাংসদ কুণাল ঘোষ ফেসবুকে লিখেছেন, “অভিযোগ মারাত্মক। নীতির প্রশ্ন। যথাযথ তদন্ত জরুরি।” তিনি আরও বলেছেন, “অভিষেক সম্পর্কে যে নীতিগত অভিযোগ উঠেছে, তা সত্য কিনা জানতে তদন্ত হোক। সবার আগে দলে তদন্ত কমিশন হোক। আলোচনা হোক। ব্যবস্থা হোক। অন্যথায় আগামী দিন এভাবেই মিডিয়া মারফৎ জানাজানি হবে। সেটা আরও ক্ষতিকারক।”

- Advertisement -

তৃণমূল কংগ্রেসের নেতানেত্রীদের বিরুদ্ধে আর্থিক অভিযোগ নতুন কিছু নয়। এর আগেও সারদা এবং নারদের মতো কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে তৃণমূল কংগ্রেস। সারদা কেলেঙ্কারির কারণেই দল থেকে বাদ পড়েছিলেন কুণাল। সেই সকল বিষয় নিয়েও তদন্তের দাবি করেছেন কুণাল। তাঁর কথায়, “২০১৩ সালে আমি বেশ কয়েকটি বিষয়ে দলে অভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিশন গঠনের দাবি করে তার মুখোমুখি হতে চেয়েছিলাম। তখন আমার কণ্ঠরোধ করে পুলিশ লেলিয়ে দেওয়া হয়। তারপর থেকে পরপর অভিযোগ উঠছে। দলে কোনও তদন্ত নেই। ফৌজদারি বিষয় হোক বা নীতিগত, তদন্ত জরুরি।”

আর্থিক কেলেঙ্কারি সহ নানাবিধ বিষয়ে অভিযোগের তীর রয়েছে তৃণমূলের অনেক নেতানেত্রীর বিরুদ্ধে। সেক্ষেত্রে কে তদন্ত করবে সেটাও একটা বড় প্রশ্ন। সেই সমস্যার সমাধানের জন্য সাংসদ সুব্রত বক্সির নেতৃত্বে তদন্ত কমিশন গঠনের কথা বলেছেন কুণাল। তিনি লিখেছেন, “মমতাদি, যদি সৎসাহস থাকে, ক্ষমতা থাকে, দলে তদন্ত কমিশন করুন। সেই কমিশনের মুখোমুখি হতে চাই। কিছু কথা বাকি আছে।” সেই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “মমতাদি, যদি সততা বলে কোনও শব্দের প্রতি বিন্দুমাত্র শ্রদ্ধা থাকে, অবিলম্বে দুর্নীতি ইস্যুতে পার্টিতে তদন্ত কমিশন ঘোষণা করুন।”

তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ উঠলেও সেটাকে কুৎসা বলে প্রচার করা হয়। সেই একই সুর শোণা যায় দলের কর্মীদের গলাতেও। তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের প্রতি কুণালের বার্তা, “তৃণমূল কর্মী, সমর্থকদের কাছে অনুরোধ, আপনারা সঠিক বিষয় না জেনে আপনাদের আবেগকে কয়েকজনের আত্মরক্ষার কাজে ব্যবহার হতে দেবেন না। বরং একটা আওয়াজ তুলুন, দলে তদন্ত কমিশন হোক। ময়নাতদন্ত হোক। একের পর এক অন্যায় চক্রান্ত আর প্রতিবাদ করলে ক্ষমতার আস্ফালনে পুলিশ দিয়ে প্রতিহিংসামূলক হেনস্থা, এভাবে সুস্থ কোনও দল চলতে পারে না। সব ইস্যু কুৎসা না বলে দলে অন্তত তদন্ত হোক।”

Advertisement
---