এলআইসি ইউনিয়ন বিরোধিতা করেছে আইডিবিআই ব্যাংকের অধিগ্রহণ

নয়াদিল্লি: এলআইসি ইউনিয়ন জানিয়ে দিয়েছে তারা জীবনবিমা নিগমের আইডিবিআই ব্যাংকের ৫১ শংতাংশ শেয়ার কেনার বিরোধী কারণ এমন সিদ্ধান্তের জেরে ক্ষতি হবে পলিসিহোল্ডার এবং তাদের প্রিমিয়ামের টাকার৷

বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের আগে লগ্নি দেওয়ার প্রসঙ্গ তুলে ফেডারেশন অফ এলআইসি ক্লাস ওয়ান অফিসার ইউনিয়নের বক্তব্য , এই সব ব্যাংকগুলির শেয়ার মূল্য কমে যাওয়ার কারণে তাদের মুনাফা কমে গিয়েছে৷ ফলে এভাবে জীবনবিমা নিগমকে আবার আইডিবিআই ব্যাংকের শেয়ার কেনালে তা নিয়ে উদ্বেগের অবশ্যই কারণ রয়েছে ৷

রিপোর্ট অনুসারে এলআইসি ১৮৫০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে ২০১৪-১৫ সালে এবং ২৫৩৯ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে ২০১৫-১৬ সালে বলে ফেডারেশনের পক্ষ থেকে এলআইসি-র চেয়ারম্যানকে দেওয়া চিঠিতে লেখা হয়েছে৷ আপাতত এলআইসি-র হাতে রয়েছে আইডিবিআই ব্যাংকের ১১শতাংশ শেয়ার এবং এই চাপে থাকা ঋণের অংক মোট ঋণের ৩৫.৯ শতাংশ৷

- Advertisement -

মার্চ কোয়ার্টারের শেষে অনুৎপাদক সম্পদ ৫৫৫৮৮ কোটি টাকা৷ মানে ব্যাংকের দরকার একটা বড় অংকের মূলধন যা এই ব্যালান্স শিট পরিষ্কার করতে সক্ষম হবে বলে জানিয়েছেন অলইন্ডিয়া এলআইসি কর্মী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক রাজেশ কুমার৷ তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, কোনও বেসরকারি সংস্থা কিন্তু এগিয়ে আসেনি আইডিবিআই ব্যাংক কিনতে যদিও সরকার তেমন চেষ্টাও করেছিল৷ এমন সিদ্ধান্তের জেরে পলিসিহোল্ডারদের ঝুঁকির মুখে ফেলা হচ্ছে বলেই তিনি অভিমত প্রকাশ করেন৷

তাছাডা বিমা আইন অনুসারে যেখানে কোনও সংস্থায় ১৫ শতাংশের বেশি লগ্নি রাখা যায় না কারণ পলিসিহোল্ডারদের সুরক্ষার কথা ভেবেই, সেখানে এমন কাজ কেন করা হচ্ছে বলে প্রশ্ন তুলেছেন অফিসার অ্যাসোসিয়েশন৷

Advertisement
---