স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: সাবেক ছিটমহলে নিম্নমানের রাস্তার কাজের অভিযোগ উঠেছে৷ সেই কাজের মান খতিয়ে দেখতেই পূর্ত দফতরের আধিকারিকরা পৌঁছলেন এলাকায়৷

কোচবিহারের সাবেক ছিটমহল মধ্য মশালডাঙায় রাস্তা তৈরিতে নিম্নমানের কাজের অভিযোগের খবর প্রচারিত হতেই নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন৷ আজ ভেঙে যাওয়া রাস্তার অবস্থা খতিয়ে দেখতে এলাকায় যান পূর্ত দফতরের আধিকারিকরা৷

আরও পড়ুন: বোটানিক্যাল গার্ডেনের প্রাক্তন সহ-অধিকর্তার বাড়িতে ডাকাতি

সব দেখে মধ্য মশালডাঙার ৮০০ মিটার রাস্তার দু’ধারে এক ফুট করে রাস্তা ভেঙে নতুন করে নির্মাণের কথা জানিয়েছেন তাঁরা৷ যদিও এলাকাবাসীরা দাবি করেছেন, সম্পূর্ণ রাস্তাই নিম্নমানের হয়েছে তাই নতুন করে এই রাস্তা তৈরি করতে হবে৷

গত সপ্তাহেই কোচবিহারের দিনহাটার সাবেক ছিটমহল মধ্য মশালডাঙায় নতুন পাকা রাস্তা তৈরি করা হয়৷ অভিযোগ, নিম্ন মানের কাজ হওয়ায় রাস্তা তৈরির সাত দিনের মধ্যেই ভেঙে যায় ওই রাস্তা৷ রাস্তার কাজ এতটাই খারাপ ছিল যে সামান্য হাত লাগালেই তা ভেঙে যাচ্ছিল৷ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হতেই নড়েচড়ে বসল প্রশাসন৷ এদিন পূর্ত দফতরের কয়েকজন আধিকারিক মধ্য মশালডাঙ্গায় যান এবং সেখানে রাস্তার কাজ পরীক্ষা করে দেখেন৷

আরও পড়ুন: তোর্সায় ফাঁসিঘাট সেতুর দাবিতে আন্দোলনে বাসিন্দারা

আধিকারিকরা জানিয়েছেন, রাস্তার দুই পাশে এক ফুট করে রাস্তা ভেঙে তা পুনরায় নির্মাণ করা হবে৷ যদিও এই ব্যবস্থা মানতে নারাজ এলাকাবাসীরা৷ তাঁদের দাবি, সম্পূর্ণ রাস্তার কাজ নিম্নমানের হয়েছে, এক ফুট করে দুই দিক থেকে নতুন করে তৈরি করলে সমস্যার সমাধান হবে না৷ তাই সম্পূর্ণ রাস্তাই ভেঙে নতুন করে তৈরি করতে হবে৷

স্থানীয় বাসিন্দা তথা বিজেপির যুব মোর্চার জেলা সম্পাদক জয়নাল আবেদিন অভিযোগ করেন, “শুধু এই রাস্তাই নয় সাবেক ছিটমহলে তৈরি হওয়া অন্যান্য রাস্তাগুলিও পরীক্ষা করতে হবে৷ কারণ, সব ক্ষেত্রেই রাস্তা তৈরিতে দুর্নীতি হয়েছে৷ যদিও নতুন রাস্তা কী করে এত তাড়াতাড়ি ভেঙে গেল, তা নিয়ে মুখ খোলেননি পূর্ত দফতরের আধিকারিকরা৷ তাঁরা জানিয়েছেন, এই বিষয়ে সঠিক ভাবে খতিয়ে দেখে তারপর বলা কিছু বলা সম্ভব৷ তার আগে কিছু বলা যাবে না৷

আরও পড়ুন: বিজয় মিছিল থেকে তৃণমূল নেতার উপর হামলায় অভিযুক্ত বিজেপি

--
----
--