ট্রেন ভাড়া করেই রাজধানীতে এসেছিলেন লঙ মার্চের কৃষকেরা

নয়াদিল্লি: মিছিল থাকলে বিনা টিকিটে ভ্রমণ করাটা যেখানে প্রায় স্বাভাবিক ঘটনায় পরিণত হয়েছে সেখানে ব্যতিক্রমী লঙ মার্চের কৃষকেরা৷ তাদের মানসিকতা যে আর অন্য পাঁচজন আন্দোলনকারীদের থেকে আলাদা আবার একবার প্রমাণ দিল৷ কারণ দিল্লিতে কৃষক -মজদূর সমাবেশের জন্য তারা ট্রেন ভাড়া করেই এসেছেন৷

সিপিএমের মুখপত্র গণশক্তি তার প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আস্ত একটি ট্রেন ভাড়া করে নাসিক থেকে দিল্লি এসেছিলেন তারা৷ এই গরিব কৃষক, খেতমজুরদের কাছ থেকেই জনপ্রতি ৭০০টাকা সংগ্রহ করা হয়েছে ফেরার জন্যও। এমন স্পেশ্যাল ট্রেন বুকিং করতে খরচ হয়েছে ৩৪লক্ষ টাকা।

এটা ঘটনা গরিব অভাবী হলেও আত্মমর্যাদা এদের আছে ৷ বোঝেন মানুষের কাছে সন্মান মর্যাদা পেতে হলে নিজেদের আচরণ তেমনটাই হওয়া উচিত৷ ফলে তাই অর্থ সংগ্রহ করে একটা আস্ত ট্রেন ভাড়া করে এভাবে নাসিক থেকে দিল্লি এসেছেন ৷ এরপর গরিব কৃষক, খেতমজুর, মজদুরদের কাছ থেকেই জনপ্রতি ৭০০টাকা সংগ্রহ করা হয়েছে ফেরার জন্যও। এমন স্পেশ্যাল ট্রেন বুকিং করতে খরচ হয়েছে ৩৪লক্ষ টাকা। সুরগানা, কালওয়ান, পেট, দিন্দৌরি, চাঁদওয়াদ, ত্রিম্বকেশ্বর এবং আরও কিছু তহসিলের পাঁচ হাজারের বেশি কৃষক নিজেদের থেকেই দান করেছেন এই সমাবেশে শামিল হওয়ার তাগিদে ৷

- Advertisement -

তবে এহেন ব্যতিক্রমী আচরণ নতুন নয়৷ সামাজিক দায়বদ্ধতার নজির রেখেছিল গত মার্চ মাসে নাসিক থেকে মুম্বই ১৮০কিলোমিটার হাঁটা লঙ মার্চের কৃষকেরা৷ সেদিন তারা চাননি তাদের মিছিলের জন্য মুম্বই শহর অবরুদ্ধ হয়ে পরীক্ষার্থীরা কোনও রকম অসুবিধায় পড়ুক ৷ সেই জন্য পদযাত্রা সময়সূচির কিছু পরিবর্তন করে আগের রাতে হেঁটেছিলেন কৃষকেরা৷ যা দেখে অভিভূত হয়েছিলেন সেখানকার মানুষ৷ আন্দোলনকারী কৃষকদের অমন সিদ্ধান্তের জন্য সহানুভূতি ঝরে পড়েছিল স্থানীয় মানুষদের ৷ আন্দোলনকারী কৃষকদের প্রতি সহমর্মিতা দেখাতে সেখানকার মানুষজনেরা জল, খাবার, ওষুধপত্র নিয়ে হাজির ছিল৷

Advertisement
---