মেড-ইন-ইন্ডিয়া: সুর পাল্টে ভারতের উচ্ছ্বসিত প্রশংসায় চিন

বেজিং: গত মাস দুয়েক ধরে বারবার ভারতকে হুমকি দেওয়া হয়েছে চিনা সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমসের পাতায়। এবার সেই সংবাদমাধ্যমই ভারতেরই উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করল। বিশ্বের উৎপাদন ক্ষেত্রে ভারতকে ‘রাইজিং স্টার’ হিসেবে বর্ণনা করেছে চিন। বলা হয়েছে, আগামী ১০ বছরের মধ্যেই ‘মেড ইন চায়না’ -কে ‘মেড ইন ইন্ডিয়া’ ছুঁয়ে ফেলবে বলে জানা গিয়েছে। ভারতে অল্পবয়সী শ্রমিকের সংখ্যা বেশি বলেই এই উন্নয়ন সম্ভব বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আর এর জন্যই বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকর্ষণের জায়গা হয়ে উঠেছে ভারত।

আরও পড়ুন: ইতিহাসে এই প্রথমবার বিশাল ট্যাংকার বোঝাই অপরিশোধিত তেল আসছে ভারতে

দেশের মধ্যেই উৎপাদনের যে প্রচেষ্টা তার জন্য ভারতের প্রশংসা করেছে চিনের এই সংবাদমাধ্যম। ওই আর্টিকলে বলা হয়েছে, মেড ইন চায়নার থেকে মেড ইন ইন্ডিয়ার বেশ কিছু অ্যাডভানটেজ রয়েছে। ডোকলাম ইস্যুর জেরে বেশ কিছু ভারতীয় সংস্থা চিনা দ্রব্য বয়কট করার ডাক দিয়েছে, সেকথাও উল্লেখ করা হয়েছে। আর্টিকলে বলা হয়েছে, ভারত দীর্ঘদিন ধরেই চিনের জায়গা নেওয়ার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু রাতারাতি সেটা সম্ভব নয়।

- Advertisement -

অন্যদিকে, ভারত মহাসাগরে শান্তি বজায় রাখতে নয়াদিল্লির সঙ্গে হাত মেলাতে চাইছে বেজিং। ডোকলাম নিয়ে সমস্যার মধ্যেই চিনের দাবি, ভারত মহাসাগরকে রক্ষা করা দুই দেশেরই দায়িত্ব। চিনের নৌবাহিনীর অফিসার ক্যাপ্টেন লিয়াং তিয়ানজুন বলেন, ভারত ও চিওনের উচিৎ একইসঙ্গে হাত মিলিয়ে ভারত মহাসাগরের নিরাপত্তার দায়িত্ব নেওয়া।

আরও পড়ুন: বিতর্ক বাড়িয়ে চিনসাগরের কাছে পৌঁছে গেল মার্কিন যুদ্ধজাহাজ

পাশাপাশি লিয়াং আরও উল্লেখ করেছেন যে ভারত মহাসাগরে কিভাবে চিনের সাবমেরিন ও যুদ্ধজাহাজের সংখ্যা বাড়ছে। সম্প্রতি এই ভারত মহাসাগরেই আফ্রিকার জিবুতিতে নৌসেনা ঘাঁটিও তৈরি করেছে চিন। এক বিশেষ অনুষ্ঠানে চিনা নৌসেনার ফ্রিজেটে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের উপস্থিতিতে এমন বক্তব্য রাখে চিন। সেখানে ওই চিনা নৌসেনা অফিসার স্পষ্ট বার্তা দিয়ে বলেন, চিন কখনই অন্য দেশে প্রবেশ করবে না। সেইসঙ্গে অন্য কোনও দেশকেও ঢুকতে দেবে না। ‘আমাদের কোনও অস্ত্রই কিন্তু খেলনা নয়’, এই বার্তাও দেন তিনি।

Advertisement ---
---
-----