‘অমিত শাহের নিজের বাবার সার্টিফিকেট আছে তো?’

ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ‘‘অমিত শাহের নিজের বাবার সার্টিফিকেট আছে তো?’’ অসমে জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকরণ (এনআরসি) ইস্যুতে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে একথা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ অসমে নিজেকে ভারতীয় প্রমাণ করতে প্রতি বাসিন্দাকে দেখাতে হচ্ছে জন্ম ও মৃত্যুর শংসাপত্র৷ শুধু তাই নয়, কোনও কোনও ক্ষেত্রে পিতামহ, মতামহেরও জন্মের শংসাপত্র চাওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ জানিয়ে মমতার বক্তব্য, ‘‘আরে আমার কাছেও তো আমার বাবার ‘বার্থ সার্টিফিকেট’ (জন্মের শংসাপত্র) নেই৷ ৪০ বছর আগে মারা গিয়েছেন৷ আমি ইউ কে (ইউনাইটেড কিংডম)-এ যাওয়ার সময় জিজ্ঞাসা করেছিল৷ আরে, আমাদের মধ্যে কতজন বাবার ‘ডেট অব বার্থ’ (জন্ম তারিখ) বা মায়ের ‘ডেট অব বার্থ’ বলতে পারবো?’’ পরে তিনি আরও বলেছেন, ‘‘বিজেপি পার্টির সবার ‘পিতাজি-মাতাজি’র সার্টিফিকেট আছে তো? তিন-চার জেনারেশনের নাম, সার্টিফিকেট, জন্ম তারিখ মনে রাখা সম্ভব৷’’

শুধু বিজেপির সর্বভারতীয় অমিত শাহ-ই নয়, কত জনের বাবা-মায়ের সার্টিফিকেট আছে তা ব্যাখ্যা করতে গিয়ে মমতা টেনে আনেন নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু (যদিও পরে বলেছেন নেতাজির থাকলেও থাকতে পারে) এবং মহত্মা গান্ধীকে৷ মমতার কথায়, ‘‘স্বামী বিবেকানন্দের বাবা-মায়ের জন্ম কবে …৷’’

মমতার বক্তব্য, স্বাধীনতার ৭২ বছর পর কেন্দ্রে বিজেপি সরকারের এনআরসি-এর কথা মনে পড়ল৷ এই জন্যই সবাই দিনে দিনে গো-রক্ষক হয়ে যাচ্ছে৷ কেউ কী জি়জ্ঞাসা করেছে, সারা বিশ্বে আরএসএস বিজেপির এত শাখা কী করে জন্ম নিল?

আজ যদি ভারতীয় জনতা পার্টির নেতৃত্বে আটল বিহারি বাজপেয়ী বা লালকৃষ্ণ আডবানির মতো নেতারা থাকতেন, তবে এনআরসি নিয়ে মামামাতি হতো না, জানিয়েছেন মমতা৷ বিজেপি বাংলা বিরোধী দল৷ অসমে ২৫ লক্ষ হিন্দু, ১৩ লক্ষ মুসলমান, ২-৩ লক্ষ বিহারি, নেপালি৷ ১২০০ মানুষকে অসমের বিজেপি সরকার Detention Camp – এ পাঠিয়ে দিয়েছে৷ তবে ইউনাইটেড বেঙ্গলি ফোরাম মমতা কে বলে গিয়েছে, অসমে এখনও ২ কোটি বাঙালি রয়েছে৷ মমতা বলেন, ‘‘শুধু বাংলা নয়৷ আমি সারা দেশজুড়েই যেকোনও ভাষার জন্য লড়তে পারি আমি৷ যেখানে ভাষাগত কারণে মানুষকে আলাদা করার চেষ্টা হবে, আমি সেখানেই লড়ব৷’’

মমতার কথায়, ‘‘বিজেপি পার্টিটার জন্যই এনআরসি চালু করা উচিত৷ ওরা ভোটের দিকে তাকিয়ে রাজনীতি করছে৷ ভোট এলেই ভারত-পাকিস্তান৷ ক্রিকেট ছেড়ে এখন ছায়াযুদ্ধ চলছে৷ আমার কথা, কেন তৃণমূল এমপি’দের অসমে আটকানো হল৷ এরকম কী করা যায়৷ আমার এখানে হলে আমি আটকাতাম না৷ মহারাষ্ট্র, উত্তর প্রদেশে অনেক বাইরের লোক থাকে৷ বাংলায় অনেক মারোয়ারি থাকেন৷ আমি কী তাদের বার করে দিতে পারি৷ গায়ের জোরে মানুষকে শরণার্থী বলা হচ্ছে৷ ১৯৭১ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত যারা ভারতে অসেছেন, তারা ভারতীয়৷’’

অমিত শাহকে মমতার প্রশ্ন, ‘‘অমিত শাহ (যদিও) ইলিশ মাছ খান না৷ বাঙালিরা ইলিশ মাছ খান৷ ইলিশ মাস কী অনুপ্রবেশকারী? আম, সন্দেশ, মিষ্টি কী অনুপ্রবেশকারী?’’

----
-----