শ্রী বিষ্ণুকে ‘মাতা’ বলে বিতর্কে মমতা

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির দয়ায় এখন রক্ত-মাংসের মানুষের লিঙ্গ পরিবর্তন হয়৷ টাকা খরচ করলেই নারী থেকে পুরুষ কিংবা পুরুষ থেকে নারী হয়ে ওঠা যায় ৷ কিন্তু এই কলিযুগে লিঙ্গ পরিবর্তন হল স্বয়ং ভগবান বিষ্ণুরও৷ সৌজন্যে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ কীভাবে হল? এখন সেই প্রশ্নের উত্তরই হোয়াটস অ্যাপের মেসেজে-মেসেজে খুঁজছেন কৌতুহলি আম-জনতা৷

সনাতন ধর্মে বলা হয় ঈশ্বর এক ও অদ্বিতীয়৷ তাঁর নির্দিষ্ট কোনও রূপ নেই৷ তিনি নিরাকার৷ ধর্মে এসব বলা থাকলেও সিংহভাগ মর্ত্যবাসীর বিশ্বাস, তাঁদের দেব-দেবীর সংখ্যা ৩৩ কোটি৷ সত্যযুগ থেকে লিঙ্গভেদেই তাঁরা পূজিত৷ যেমন দেবী বলতে দুর্গা, কালী, লক্ষ্মী, সরস্বতীকে বোঝায়, তেমন শিব, গনেশ, বিশ্বকর্মা, নারায়ণকে পুরুষ দেবতাদের দলেই রাখা হয়৷

- Advertisement -

পুরাণে বলা হয়েছে মহাবিশ্বে আদি পুরুষই হচ্ছেন ভগবান শ্রী বিষ্ণু অর্থাৎ নারায়ণ৷ কিন্তু বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে হোয়াটস অ্যাপের একটি মেসেজের ভিডিওতে৷ যেখানে দেখা যাচ্ছে, একটি সভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেব-দেবীদের নাম উল্লেখ করার সময় ভগবান বিষ্ণুকে ‘বিষ্ণু মাতা’ বলে সম্বোধন করছেন৷ যদিও এই ভিডিওর সত্যতা ও বিশুদ্ধতা যাচাই করেনি কলকাতা 24×7 নিউজ পোর্টাল৷ তবে সোশ্যাল মিডিয়া ও হোয়াটস অ্যাপে ভিডিওটি ‘ট্রোলড্’ হয়েছে৷ সেইসঙ্গে রীতিমতো বিতর্ক ছড়িয়েছে বিষয়টি নিয়ে৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেরই প্রশ্ন, বিষ্ণু কীভাবে স্ত্রী লিঙ্গ হলেন?

এপ্রসঙ্গে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সহ সভাপতি চন্দ্রনাথ দাস বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর আগেও প্রচুর ভুল বলেছেন৷ এটা ওর ইচ্ছাকৃত না অনিচ্ছাকৃত ভুল সেটা জানি না৷ যদিও ওর এই কথায় ভগবান বিষ্ণুর কোনও অপমান হয়নি কিন্তু যাঁরা ঈশ্বরে বিশ্বাস করেন তাঁদের এধরনের কথা শুনতে খারাপই লাগে৷”

তৃণমূল ঘেঁষা পুরাণ বিশারদ নৃসিংহ প্রসাদ ভাদুরীর বক্তব্য, “যাদের কোনও কাজ নেই তাঁরাই এসব নিয়ে বাড়াবাড়ি করে৷ তিনি বলেন, একটা গতিতে বক্তব্য রাখার সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ থেকে এটা বেরিয়ে গিয়েছে৷ এটা খুবই সামান্য একটা ব্যাপার৷ এত চর্চা কেন হচ্ছে বুঝতে পারছি না!”

বিরোধী দলের এক নেতার কটাক্ষ, “ওর(মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের) তো সব বিষয়েই অগাধ জ্ঞান৷ স্বয়ং ভগবান যখন ওর ভুল ধরতে পারেনা তখন সামান্য মানুষ হয়ে আর কি বলব?” অন্যদিকে এক তৃণমূল নেতার পালটা বক্তব্য, ‘‘আরে বিশ্বকর্মা পুজোতেও তো আমরা বলি বিশ্বকর্মা মাই কি … কী যায় এলো৷ ভক্তিটাই আসল৷’’

Advertisement ---
---
-----