৩৯ দেশে উপস্থিত আরএসএস, খুশি হবেন মমতা?

দেবময় ঘোষ: এনআরসি নিয়ে আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিদেশে আরএসএস-এর উপস্থিতির কথা উল্লেখ করে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন মঙ্গলবার৷ তবে মুখ্যমন্ত্রীকে যাঁরা তথ্য সরবরাহ করেছেন, তা হয়তো জানবেন, বিদেশের মাটিতে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের প্রসার গত কয়েকদশক ধরেই চলছে৷ বিদেশের মাটিতে সঙ্ঘের বিস্তারের ইতিবৃত্ত জানলে হয়তো খুশি হবেন না বাংলার মুখ্যমন্ত্রী৷

বিশ্বের ৩৯ দেশে উপস্থিত রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ (আরএসএস)৷ ঘরের কাছে প্রতিবেশি নেপালেই শুধু নয়, তিনিটি ইংরাজিভাষী দেশে – ইউনাইটেড কিংডম, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অস্ট্রেলিয়াতেও রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের উজ্জ্বল উপস্থিতি রয়েছে৷ আরএসএস-এর শাখা ওই ৩৯ দেশে ছড়িয়ে রয়েছে৷ সব থেকে বেশি আরএসএসের শাখা নেপালেই রয়েছে৷ মার্কিন দেশে দিনে দিনে বাড়ছে আরএসএসের শাখা৷ নেপালের পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই ১৭২টি শাখা রয়েছে আরএসএস-এর৷ তাও এই পরিসংখ্যান ২ বছর আগেকার৷ ২০১৮ সংখ্যাটি আরও বড় হবে৷ বিত্তশালী Indian-American দের মধ্যে আরএসএসের জনপ্রিয়তা চোখে পড়ার মতো৷

ওয়াশিংটনের গবেষণাকারী সংস্থা Pew Research Center চার বছর আগের গবেষণার রিপোর্টে জানিয়েছিল, মার্কিন দেশে বসবাসকারী হিন্দুর সংখ্যা মোট জনসংখ্যার মাত্র ০.০৭ শতাংশ৷ কিন্তু ওই দেশের সমস্থ জাতিগত গোষ্ঠীগুলির মধ্যে উচ্চ শিক্ষিতের হার হিন্দুদের মধ্যেই সব থেকে বেশি৷ ৭৭ শতাংশ হিন্দুদের কলেজ এবং পোস্ট গ্র্যাডুয়েড ডিগ্রি রয়েছে৷ ৭০ শতাংশ হিন্দুদের উচ্চপদে চাকরি রয়েছে৷ তাঁরা প্রতিষ্ঠিত৷ মাথাপিছু আয় ৫০ হাজার ডলার৷ এছাড়াও ৭৯ শতাংশ হিন্দু মনে করেন ধর্ম তাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷

- Advertisement -

সাংবাদিক ওয়াল্টার আন্ডারসন এবং শ্রীধর ডি ডামলে, তাঁদের বই ‘The RSS: A View to the Inside’ উল্লেখ করেছেন, মার্কিন দেশে সঙ্ঘের (যা US HSS বা হিন্দু স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ) শাখায় প্রতিদিন প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা পাঁচ থেকে সাত হাজার৷ তবে মাঝে মাঝে যাঁরা আসেন বা পারিবারিক অনুষ্ঠানগুলিকে এই হিসাবে রাখা হলে সংখ্যাটি আরও কয়েকগুণ বেশি হবে৷ বিদেশে প্রতিটি হিন্দু স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের শাখা স্বয়ংশাসিত৷ রয়েছে হিন্দু সেবিকা সমিতিও৷ তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডের শাখাগুলিতে সেবিকা সমিতি নেই৷ কারণ ওই দেশগুলিতে হিন্দু স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের টাকা পরিবারকেন্দ্রিক৷

বিশ্বের যেখানেই সঙ্ঘের পায়ের ছাপ পড়েছে, সেখানেই বিস্তারক বা বিস্তারিকারা সঙ্ঘের মাহাত্মকে প্রচার করার চেষ্টা করেছে৷ হিন্দু স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের প্রশিক্ষণ শিবির সঙ্ঘ শিক্ষা বর্গ থেকেই সঙ্ঘিরা নাগপুরে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের দফতরে আসার সুযোগ পেতে পারবে৷ আমেরিকা থেকে অস্ট্রেলিয়া কিংবা কেনিয়া বা ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জেও একই নিয়ম চলে৷

Advertisement
-----