প্রধানমন্ত্রিত্ব নয়, আরও বড় লক্ষ্যে লড়বেন মমতা

প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: তাঁকে প্রধানমন্ত্রী পদে দেখতে আপত্তি নেয় কেন্দ্রের প্রধান বিরোধী রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের। দলের সভাপতি রাহুল গান্ধী নিজে প্রধানমন্ত্রীর গদি ছেড়ে দিতে রাজি তাঁর জন্য। কিন্তু তাঁর লক্ষ্য কিছুটা আলাদা।

যাকে নিয়ে আলোচনা সেই তিনি হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রী হওয়াটাই লক্ষ্য নয় তৃণমূল নেত্রীর। আরও বড় লক্ষ্য নিয়ে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে লড়াই করবেন তিনি।

বুধবার দিল্লিতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এমনই জানিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাহুল গান্ধী মোদীকে পরাস্ত করতে তৃণমূল নেত্রীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর গদি ছেড়ে দিতে রাজি। যদিও প্রধানমন্ত্রীত্ব নয়, মমতার প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে বিজেপিকে হারানো। তাঁর কথায়, “আগে নির্বাচন শেষ হোক। বিজেপিকে হারাই। তারপরে এই নিয়ে সর্বসম্মত আলোচনার মাধ্যমে সবকিছু ঠিক করা হবে।”

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক পরিসর বাংলার মধ্যেই সীমাবদ্ধ। এই রাজ্যের বাইরেও কয়েক জায়গায় খাতা খুললেও পড়ে তা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। যদিও ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বিরোধিতার অন্যতম প্রধান মুখ হচ্ছেন মমতা। তিনিই দেশে গেরুয়া ঝড় ঠেকাতে ফেডারেল ফ্রন্ট গঠনের আহ্বান জানিয়েছেন। প্রায় সকল বিরোধী রাজনৈতিক দল সেই আহ্বানে সাড়া দিয়েছেন।

জানুয়ারি মাসের ১৯ তারিখে লোকসভা নির্বাচনের প্রচারের উদ্দেশ্যে কলকাতার ব্রিগেডে সমাবেশের আয়োজন করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি বিরোধী সকল রাজনৈতিক দলের নেতাদের সেই সমাবেশে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মমতা। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার লক্ষ্যেই কী সকল বিরোধী রাজনৈতিক দলের সঙ্গেই সুসম্পর্ক বজায় রাখছেন মমতা? এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছেন, “আমি সকলের সঙ্গেই সুসম্পর্ক বজায় রাখি। এটা পরম্পরা… এটা সৌজন্য।” সকলের সঙ্গে দেখা করতে ভালো লাগে বলে জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

----
-----