কেন্দ্রকে তোপ দেগে রাজ্যে ১০ লক্ষ কর্মসংস্থানের আশ্বাস মমতার

কলকাতা: কর্মসংস্থান নিয়ে বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের মঞ্চ থেকে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ জানিয়ে দিলেন সারা দেশে যখন গত বছরেই ২কোটি মানুষ কর্মহীন হয়েছে তখন বাংলায় ৪০ শতাংশ বেতারত্ব কমেছে৷ দেশের কর্মসংস্থানের পরিস্থিতিকে ভয়াবহ বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ বলেন, ‘বাংলায় বিনিয়োগের সেরা গন্তব্য৷’

আরও পড়ুন: ‘রাবণ’ মোদীকে শেষ করতে ‘রাম’ অবতারে রাহুল

সামনেই লোকসভা নির্বাচন৷ চরমে কেন্দ্র রাজ্য সংঘাত৷ সেই সংঘাতের জের এসে পড়ল বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনে দ্বিতীয় দিনে মুখ্যমন্ত্রীর ভাষণে৷ প্রথম দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের সব রাজ্যের উন্নতি হোক বলে আহ্বান জানিয়েছিলেন৷ তবে একই সঙ্গে জানাতে ভোলেননি মোদীর সরকার বস্তুত বাতিলের তালিকায়৷ নতুন সরকার দেশের শাসন ক্ষমতার দায়িত্বে এলে নতুন শিল্প নীচি ঘোষণা করবে৷ তখন আপনারা ভোলে করে, নিশ্চিন্তে বিনিয়োগ করতে পারবেন৷

শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী শিল্প সম্মেলনের মঞ্চে বলেন, ‘‘বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের মঞ্চ থেকে ২ লক্ষ ৮৪ হাজার ২৮৮ কোটি টাকার বিনিয়োগ এসেছে৷ এতে প্রায় ৮ থেকে ১০ লক্ষ মানুষের কর্মসংস্থান হতে পারে৷ যা সারা দেশের মধ্যে নজরকাড়া৷’’ এই প্রসঙ্গেই উঠে আসে বেকারত্বের কথা৷ মমতা তুলনা টানেন ভারতের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতির৷ মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, ‘‘জিএসটি, নোটবন্দির ফলে গত বছরই দেশে ২ কোটি মানুষ কাজ হারিয়েছেন৷ কিন্তু এরাজ্যের উলটো ছবি৷ প্রতিকূল পরিস্থিতি সত্ত্বেও বাংলায় ৪০ শতাংশ বেকারত্ব কমানো হয়েছে৷’’

আরও পড়ুন: ভবিষ্যদ্বাণী: ক্ষমতায় এলেও প্রধানমন্ত্রীর আসন থেকে ছিটকে যাবেন মোদী

২০১৬ সালের ৮ই নভেম্বর নোটবন্দির ঘোষণা হতেই প্রথম বিরোধীতা করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এরপর অন্যন্য বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলের তরফেও নোটবন্দির বিরোধীতা করা হয়৷ তৃণমূল সুপ্রিমোর দাবি নোটবন্দি, জিএসটি লাগুর ফলে দেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে৷ কর্মহীন হয়েছেন বহু মানুষ৷

আরও পড়ুন: রাজীব কুমারের জেরার আগে সিজিও কমপ্লেক্সের বাইরে শুরু তৃণমূলের গণঅবস্থান

শিল্পপতিরা বিনিয়োগ করতে পারচ্ছেন না৷ ফলে তৈরি হচ্ছে না কর্মসংস্থানের৷ দেশের যখন এই অবস্থা, তখন বাংলায় বিনিয়োগ এসেছে গত কয়েক বছরে৷ এই বছরের বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন থেকে বিনিয়োগের প্রস্তাব আশাপ্রদ৷ লোকসভার আগে এই তুলনা দেশ বিদেশের শিল্পপতিদের সামনে পেয়ে বড় পরিসরে তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী৷

মুখ্যমন্ত্রী জানান, চলতি সম্মেলন থেকে পশ্চিমবঙ্গে শিল্প বিনিয়োগের প্রস্তাব এসেছে ২ লক্ষ ৮৪ হাজার ২৮৮ কোটি টাকার৷ পরিকাঠামো তারি করা হয়েছে৷ প্রয়োজনে আরও করা হবে৷ এই বিনিয়োগ হলে প্রায় ৮ থেকে ১০ লক্ষ মানুষের কর্ম সংস্থান হবে বলে মনে করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি বলেন, ‘‘সম্মেলন থেকে ৮৬টি মউ সাক্ষর হয়েছে৷ যা ভবিষ্যতের ক্ষেত্রে অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক৷’’

আরও পড়ুন: ‘চৌকিদার’ই চুরি করেছেন ৩০ হাজার কোটি, প্রমাণ দিলেন রাহুল

এবারের শিল্প সম্মেলনে ৩৬টি দেশের প্রায় ৪ হাজার শিল্পপতি অংশগ্রহণ করেছেন৷ সম্মেলনের বিনিয়োগের প্রস্তাব দেখে সন্তুষ্ট মুখ্যমন্ত্রী৷ তিনি জানান, বাণিজ্য সম্মেলনের ফলাফল চমৎকার৷ বেস্ট বেঙ্গল গড়ে কোলার পেছনে এর ভূমিকা অনস্বীকার্য৷ যা দেতে শেখা উচিত অন্যান্য রাজ্যের৷ তাঁর দাবি, ভবিষ্যতে বিনিয়োগের গন্তব্য বাংলা-ই৷

---- -----