ওপারে আপা-এপারে দিদি বাতাসে ব়্যাকেট ঝলক

প্রসেনজিৎ চৌধুরী: বয়সের হিসেবে দুজনেই সিনিয়র সিটিজেন৷ কিন্তু দুজনেই ফিট৷ আর সেই ফিটনেস টেস্ট যদি ব্যাডমিন্টনের কোর্ট হয় তাহলে তো কথাই নেই৷ দুজনেই তাতে পারদর্শী৷ ওপারে অর্থাৎ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি খেলতে পারেন, তাহলে তাঁর থেকে বয়সে ছোট হয়ে এপারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন পারবেন না৷ বিশেষ করে নিয়ম করে ওয়াকারে হাঁটা অভ্যাস যখন দিদির৷

সবমিলে শীতের আমেজে ওপারের আপা আর এপারের দিদি দুজনেই চুটিয়ে কোর্টে শাটল কক উড়িয়ে গেলেন৷

বাংলাদেশের সদ্য সমাপ্ত জাতীয় নির্বাচনের আগের শেখ হাসিনার কিছু ছবি ভাইরাল হয়েছিল৷ তাতে দেখা গিয়েছিল বঙ্গবন্ধু কন্যা গণভবনে ব্যাডমিন্টন খেলছেন৷ আসলে শ্রীমতি হাসিনার জীবন নিয়ে তৈরি হওয়া ডকুফিচার- ‘হাসিনা: অ্যা ডটার’স টেল’ এর একটি দৃশ্যে দেখা গিয়েছে নিজের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সঙ্গে নিয়েই ব্যাডমিন্টন খেলছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী৷ ঢাকার গণভবনে এই দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দি করা হয়৷ আর ডকুফিচার মুক্তি পেতেই সাড়া পড়ে যায় বাংলাদেশে৷ শেখ হাসিনার বিরলতম মুহূর্তগুলির একটি হয়েই থেকে গেল খেলার দৃশ্যটি৷

- Advertisement -

এপারে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কম যাননা৷ তিনিও চুটিয়ে ব্যাডমিন্টন খেলতে পারেন৷ তার প্রমাণ দিলেন কোর্টে নেমে৷ বোলপুরে প্রশাসনিক কাজে অংশ নিতে গিয়ে প্রবল ঠাণ্ডায় তিনি নেমে পড়লেন ব্যাডমিন্টন খেলতে৷ প্রতিপক্ষদের সঙ্গে সমান তালে খেলে গেলেন৷ চাদর পরেও যে এত দ্রুত গতিতে ব়্যাকেট চালানো সম্ভব তাও বুঝিয়ে দিলেন৷ খোদ মুখ্যমন্ত্রীর ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এই ছবি পোস্ট হতেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে৷

আরও পড়ুন: ব্যাডমিন্টন কোর্টে মমতা বোঝালেন তিনি কেন রাজনীতির পাকা খেলোয়াড়

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরপর তিনবার ক্ষমতায়৷ তাঁর সঙ্গে সুসম্পর্ক পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ও নয়াদিল্লি-ঢাকা কূটনৈতিক আলোচনার মাঝে হাসিনা-মমতা সাক্ষাৎ হয়েছে বারে বারে৷ বেশ কয়েকবার বাংলাদেশে গিয়েছেন মমতা৷ হাসিনাও এসেছেন পশ্চিমবঙ্গে৷ যদিও তিস্তা জলবন্টন চুক্তি নিয়ে তাঁদের মধ্যে কিছু মতপার্থক্য রয়েছে৷

আপাতত দুই নেত্রীর ব্যাডমিন্টন ঝলকই নজরকাড়া মুহূর্ত৷