২১শের মঞ্চ থেকে সিবিআই ও ইডি-কে হুঁশিয়ারি মমতার

২০১০ সাল৷ তখনও বাংলার মসনদে বামেরা৷ তবু তৃণমূলের শহিদ দিবসে মানুষের ভিড় কম হয়নি৷

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দোপাধ্যায় ২১শের মঞ্চ থেকে সিবিআই ও ইডির উদ্দেশ্য হুঁশিয়ারি দিতে বার্তা দিলেন তাঁরা এই তদন্তকারী সংস্থাকে আদৌ ভয় পাচ্ছেন না৷

এদিন সভামঞ্চ থেকে তিনি বলেন, ‘‘নতুন করে আবার সিবিআই পাঠাতে পারে,নতুন করে আবার ইডি পাঠাতে পারে, আমাদের কোনও যায় আসে না৷ হাতে এজেন্সি আছে বলে যা ইচ্ছে করতে হবে৷ আমার হাতেও তো অনেক কেস আছে কিন্তু আমি তো আজ পর্যন্ত করিনি কিছু৷’’

আরও পড়ুন- মানুষে আস্থা থাকলে ভোটে সন্ত্রাস কেন? মমতাকে খোঁচা দিলীপের

সম্প্রতি সারদা তদন্তের গতিপ্রকৃতি খতিয়ে দেখতে কলকাতা ঘুরে যান বিশেষ সিবিআই অধিকর্তা রাকেশ আস্থানা৷ নিজাম প্যালেসে গিয়ে কথা বলেন তদন্তকারী আধিকারিকদের সঙ্গে৷ তিনি তদন্তকারী আধিকারিকদের তদন্তের অগ্রগতির রিপোর্ট জমা করার নির্দেশ দেন৷ এই বছরের মধ্যেই তদন্ত প্রক্রিয়া শেষ করতে বলেন৷ প্রয়োজনে ফের জিজ্ঞাসাবাদ করতে হবে নারদা-সারদা কাণ্ডে যাদের নাম রয়েছে তাঁদের৷ এরপরই নড়েচড়ে বসে সিবিআই ৷ ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজনকে ফের ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তদন্তকারী সংস্থাগুলি৷

এদিকে সারদা কান্ড নিয়ে রাজ্য সরকারের তদন্তকারী আধিকারিকদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (সিবিআই) এর দ্বন্দ্ব গড়িয়েছে আদালতে ৷ সিবিআইয়ের অভিযোগ সারদা কান্ডের তদন্তে রাজ্য সরকার সহযোগিতা করছে না৷ রাজ্য সরকারের অসহযোগিতা বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিমকোর্টে পিটিশনও দাখিল করে সিবিআই৷ যদিও রাজ্য সরকারের আইনজীবী এই অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেছে৷ রাজ্য সরকারও চায় সারদা তদন্তের দ্রুত নিষ্পত্তি হোক৷

২০১৭ সাল৷ ধর্মতলায় উপচে পড়া মানুষের ভিড় বুঝিয়েছিল ২১ জুলাই আবেগের আরেক নাম৷

সারদা মামলা নিয়ে রাজ্য ও সিবিআইয়ের মধ্যে দীর্ঘ দিনের বিরোধ৷ অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগে বিরক্ত শীর্ষ আদালতও৷ তাই কয়েক দিন আগে শীর্ষ আদালত সিবিআই ও রাজ্য সরকারের আইনজীবী কে বলেন, এনিয়ে যা অভিযোগ, তা হাইকোর্টকে জানাতে হবে৷ স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, ২১শের মঞ্চ থেকে সিবিআই ও ইডি কে মমতার হুঁশিয়ারির পর রাজ্য ও সিবিআইয়ের মধ্যে বিরোধ আরও বাড়বে না তো?

----
-----