চাপ বাড়ছে শহরের অন্যান্য ব্রিজেও! তড়িঘড়ি বৈঠক মমতার

কলকাতা: গত প্রায় ২৪ ঘন্টা আগে হঠাত করে বদলে যায় কলকাতার চিত্রটা! কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে মাঝেরহাট ব্রিজ। এরপর থেকে সবকিছুই জানা সবার কাছে। কিন্তু সমস্যা গভীর আকার নিয়েছে আজ বুধবার সকাল থেকে।

একদিকে অফিস যাত্রীদের ভিড় অন্যদিকে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পণ্যবাহী লরির ভিড়। তীব্র যানজট শহরজুড়ে। যদিও কলকাতা পুলিশ সকাল থেকেই যুদ্ধকালীন তৎপরতায় যান নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেছে। বিভিন্ন রাস্তা দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে গাড়ি থেকে পণ্যবাহী গাড়ি। চাপ বেড়েছে শহরের অন্যান্য রাস্তা এবং সেতুগুলিতে। আর সেটাই চিন্তার কারণ রাজ্য সরকারের।

প্রসঙ্গত, মাঝেরহার ব্রিজ ভেঙে যাওয়ার পরেই টালিগঞ্জ, চেতলা, দুর্গাপুর ও কালীঘাট ব্রিজে ব্যাপকভাবে চাপ বেড়েছে। কিন্তু, এসব ব্রিজগুলি কতটা পোক্ত? একদিকে যেমন আতঙ্কিত শহরবাসী তেমনই শঙ্কায় রয়েছে খোদ সরকারও। আর তাই তড়িঘড়ি শহরের এইসব ব্রিজগুলির অবস্থা নিয়ে আলোচনা করতে ও উপযুক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করার উদ্দেশে আগামীকাল বৃহস্পতিবার জরুরি ভিত্তিতে নবান্নে বৈঠক ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

- Advertisement -

এই বৈঠকে শীর্ষ স্থানীয় আমলা-সহ বিভাগীয় ইঞ্জিনিয়ররাও উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গিয়েছে। শহরের সেতুগুলি নিয়ে নির্দিষ্ট রুপরেখা তৈরি করতে মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দিতে পারে বলে জানা গিয়েছে।অন্যদিকে, আজ বুধবার একপ্রস্ত এই বিষয়ে বৈঠক করেন ফিরহাদ হাকিম। এমনটাই নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার হঠাত করেই ভেঙে পড়ে মাঝেরহাট ব্রিজের একাংশ। এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় একজনের মৃত্যু হলেও আহত অনেক। অন্যদিকে, যুদ্ধকালীন তৎপরতায় ধ্বংসাস্তুপ সরানোর কাজ করছে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর।

Advertisement ---
---
-----