যুবতীকে গাড়ি থেকে নামিয়ে হুমকির অভিযোগ সল্টলেকে

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: গাড়ি থেকে নামিয়ে এক যুবতীকে মারধর ও গাড়ি ভাঙচুরের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে৷ অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম শান্তনু চক্রবর্তী৷ শনিবার রাতের এই ঘটনাটি সল্টলেকের বৈশাখী এলাকায়৷

সল্টলেকের বিএফ ব্লকের বাসিন্দা নেহা আগরওয়াল (৩২)-এর অভিযোগ, শনিবার রাত ১১ টা নাগাদ কেষ্টপুর খালপাড়ের দিক থেকে গাড়ি চালিয়ে বাড়ির দিকে যাচ্ছিলেন তিনি৷ সেই সময় তাঁর গাড়িকে আটকে দেয় অন্য একটি গাড়ি৷ ওই গাড়ি থেকে নেমে অভিযুক্ত শান্তনু চক্রবর্তী জোর করে নেহা আগরওয়ালকে গাড়ি থেকে নামিয়ে আনেন৷ তার পর তিনি তাঁকে মারধর ও গাড়ি ভাঙচুরের হুমকি দেন বলে অভিযোগ৷

নেহা আগরওয়াল জানিয়েছেন, হুমকির পাশাপাশি তাঁকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও করেন অভিযুক্ত৷ শান্তনু চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে বিধাননগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি৷

- Advertisement -

যদিও নেহা আগরওয়ালের যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শান্তনু চক্রবর্তী৷ তিনি জানিয়েছেন, দেড় বছর আগে নেহা আগরওয়ালের বিবাহ বিচ্ছেদ হয় আশিস আগরওয়ালের সঙ্গে৷ এই যুবতীর প্রাক্তন স্বামীর সঙ্গে বহু বছরের বন্ধুত্ব রয়েছে তাঁর৷ এমনকী আশিস আগরওয়ালের সঙ্গে যৌথভাবে সল্টলেক সেক্টর ফাইভে একটি রেস্টুরেন্টও চালান তিনি৷

জানা গিয়েছে, আশিস ও নেহা আগরওয়ালের একটি সন্তান রয়েছে৷ সন্তান ও স্বামীকে ছেড়ে নেহা আগরওয়াল চলে যান৷ কিন্তু, অনেক দিন ধরেই সন্তানের অধিকার নিয়ে পারিবারিক ঝামেলা চলছিল দু’ জনের মধ্যে৷ কয়েকদিন আগে নেহা আগরওয়ালকে এক ব্যক্তির সঙ্গে সিটি সেন্টারের সামনে ঘুরতে দেখে আশিস আগরওয়ালকে তিনি৷ এই কথা জানতে পেরে নেহা আগরওয়াল তাঁর বাড়িতে ফোন করে অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি করেছেন বলে অভিযোগ উঠছে৷

শান্তনু চক্রবর্তীর অভিযোগ, শনিবার রাতে এক বান্ধবীকে নিয়ে সেক্টর ফাইভের রেস্টুরেন্টে যান নেহা আগরওয়াল৷ সেখানে সবার সামনে অভব্য আচরণ করেন তিনি৷ অবশেষে, রাত ১১.২০ নাগাদ গাড়িতে করে চলে যান নেহা আগরওয়াল৷ তার পর রবিবার সকালে তিনি জানতে পারেন তাঁর বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযোগ উঠছে৷

নেহা আগরওয়াল চলে যাওয়ার পর অনেক রাত পর্যন্ত তিনি রেস্টুরেন্টেই ছিলেন বলে দাবি করেছেন অভিযুক্তের৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি আমার রেস্টুরেন্টেই ছিলাম৷ সিসিটিভির ফুটেজ পরীক্ষা করলেই দেখা যাবে৷’’