ফোটো নিয়ে সুদূর ডেনমার্ক থেকে পরিবারের খোঁজে এই ব্যক্তি

ঢাকা: ৪১ বছর পর বাবা মায়ের টানে নিজের দেশে ফিরে এল ছেলে৷ পাবনার বেড়া উপজেলার নগরবাড়ি ঘাট এলাকা থেকে ছয় বছর বয়সে হারিয়ে গিয়েছিল৷ নিজের নামটুকুও মনে ছিল না তার৷

তারপর কিছুদিনের জন্য তার ঠাঁই হয়েছিল অনাথ আশ্রমে৷ সেখান থেকে তাকে ডেনমার্কের এক নিঃসন্তান দম্পতি দত্তক নিয়েছিল৷ তাঁরাই তার নামকরণ করে৷ নাম দেয় মিন্টো কার্স্টেন সনিক৷

আরও পড়ুন: এবার সোলার লাইটে পড়াশুনো কলকাতায়

- Advertisement DFP -

তারপর থেকে ওই দম্পতির স্নেহে ডেনমার্কেই বড় হয়েছেন তিনি৷ বর্তমানে তিনি ডেনমার্কের একজন চিত্রশিল্পী৷ সেখানেই একজন ডেনমার্কের চিকিৎসক এনিটি হোলমি হেবকে বিয়ে করেন তিনি৷ তাঁদের এক কন্যা সন্তান ও এক পুত্র সন্তানও আছে৷

দিন দশেক আগে নিজের বাবা মাকে ফিরে পাওয়ার আশায় তিনি ও তাঁর স্ত্রী পাবনায় এসেছেন৷ নিজের পরিবারকে খুঁজে পাওয়ার জন্য তাঁর কাছে প্রমাণ বলতে রয়েছে শুধু শৈশবের কয়েকটি ছবি৷ সেই ছবিগুলিকেই সম্বল করে তিনি এখন পাবনার পথে পথে ঘুরে বেরাচ্ছে৷ তিনি তাঁর শৈশবের ছবি গুলি দিয়ে লিফলেটও তৈরি করেছে৷ সেই লিফলেটগুলি স্থানীয়দের ও দোকানে দোকানে দেখাচ্ছেন তিনি৷ যদি কেউ কিছু বলতে পারে এই আশায়৷

আরও পড়ুন: জেনে নিন গণেশ চতুর্থীর কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

মিন্টো কার্স্টেন সনিক জানান, ছোটবেলায় পরিচয় নিয়ে তার তেমন কোনও কিছু উপলব্ধি হয়নি৷ বা তিনি তার পালক বাবা মার স্নেহে কিছু বুঝতেও পারেননি৷ কিন্তু বয়সের সঙ্গে সঙ্গে তাঁর পরিচয় নিয়ে সঙ্কট হয়৷ ডেনমার্কে থাকাকালীন তাঁর কোনও কিছুর অভাব হয়নি৷

কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তার ভালো না লাগার বিষয়গুলি পরিস্ফুটিত হতে থাকে৷ এমনকী তিনি তাঁর পরিবারের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন৷ তাঁর বাবা মাকে খুঁজে পাওয়ার জন্য তেমন কোনও নির্ভরযোগ্য সূত্র তাঁর কাছে নেই। কিন্তু তারপরও প্রাণের টানে নিজের বাবা মার খোঁজে তিনি পাবনায় এসেছেন৷

আরও পড়ুন: পেট্রপণ্যের অগ্নিমূল্য নিয়ে দেশবাসীকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ১০টি তথ্য

গত দশ দিন খোঁজ করে তিনি কিছু আশা জাগানোর মত পাননি। রোজ সকাল থেকে স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে শুরু হয় তাঁর খোঁজ করা৷ বাংলা বলতে পারেন না৷ বুঝতেও পারেন না। কিন্তু তা সত্ত্বেও কোনও রকমে বোঝানোর চেষ্টা করেন তিনি৷

পরিবারের খোঁজে মিন্টো পাবনার পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন৷ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) শামিমা আকতার তাঁকে সাহায্য করছেন৷

আরও পড়ুন: পথ দুর্ঘটনায় আহত ১০ জন বাস আরোহী

Advertisement
----
-----