অ্যাম্বুল্যান্স নেই, টোটো করে অসুস্থ ছেলেকে নিয়ে হাসপাতালে বাবা

লখনউ: ফের একবার বেহাল দশা চিকিৎসা পরিষেবার৷ ফের একবার ঘটনাস্থল সেই উত্তরপ্রদেশ৷ অ্যাম্বুল্যান্স না থাকায় টোটো করে অসুস্থ ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে গেলেন বাবা৷ সেই ছবি লেন্স বন্দী হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে৷

এখানেই শেষ নয়, একটি হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে সেখানে জায়গা না পেয়ে সেই টোটোতে করেই আরেক হাসপাতালে ছুটতে হল বাবাকে৷ সঙ্গে সেই গুরুতর অসুস্থ ছেলে৷ প্রথমে টোটোতে করে রাজকীয়া মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়া হয় ছেলেটিকে৷ সেখানে চিকিৎসকরা তাঁকে জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন৷ তবে রাজকীয়া মেডিক্যাল কলেজও কোনও অ্যাম্বুল্যান্স দিতে পারেনি৷
এমনকী ওই পরিবারের দাবি, ১০৮ নম্বরে তাঁরা ফোন করেছিলেন অ্যাম্বুল্যান্সের জন্য৷ কিন্তু এক ঘন্টা বসে অপেক্ষা করার পরেও, কোনও লাভ হয়নি৷ বাধ্য হয়ে টোটো ভাড়া করতে হয় তাঁদের৷

এমনকা হাসপাতাল থেকেও তাদের অ্যাম্বুল্যান্স দেওয়া হয়নি বলে দাবি করেছে ওই পরিবার৷ তবে এই বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে, চিফ মেডিক্যাল অফিসার বলেন, তাদের কাছে কোনও তথ্যই আসেনি এই বিষয়ে৷ নয়তো অ্যাম্বুল্যান্সের ব্যবস্থা করা যেত৷

- Advertisement -

পরিবারের বক্তব্য অসুস্থ ছেলের চিকিৎসার দরকার ছিল আগে৷ অ্যাম্বুল্যান্সের জন্য দরজায় দরজায় ঘোরার সময় তাঁদের হাতে ছিল না৷

গত ৯ সেপ্টেম্বর মধ্যপ্রদেশের দামোহ–তে অসুস্থ এক ব্যক্তিতে খাটিয়ায় শুইয়ে নদী পার করে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলেন গ্রামবাসীরা। ঘটনাটির ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে দেশ জুড়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়।

গত ২০ মে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অ্যাম্বুল্যান্স না দেওয়ায় বেশ কিছুটা পথ স্ট্রেচারে করে স্ত্রীর মৃতদেহ নিয়ে যেতে হয়েছিল এক ব্যক্তিকে। পরে সমস্যার বিষয়টি বুঝতে পেরে এক চিকিৎসক তাঁকে অ্যাম্বুল্যান্সের ব্যবস্থা করে দেন। অপর একটি ঘটনায়, সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক সাহায্য না করায় ১৫ বছরের সন্তানের মৃতদেহ কাঁধে করে নিয়ে যেতে হয় এক অসহায় বাবাকে। উত্তরপ্রদেশের ইটা জেলায় ঘটনাটি ঘটে।

Advertisement ---
---
-----