নয়াদিল্লি: সমাজসেবার অতলে নিরাপদ শিশু পাচার৷ ঝাড়খণ্ডে মিশনারিশ অব চ্যারিটি থেকে শিশু পাচার তারই প্রমাণবাহী৷ ঘটনার পরই কড়া পদক্ষেপ কেন্দ্রের৷ ছোট থেকে বড় দেশের সব মিশনারিশ অব চ্যারিটির আইনি কাগজপত্র খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিল নারী ও শিশু কল্যান মন্ত্রক৷

প্রত্যেক রাজ্যের মিশনারিশ অব চ্যারিটির উপর কড়া নজর দেওয়া হবে৷ রাজ্য সরকারকে কেন্দ্রের নির্দেশ, মিশনারিশ অব চ্যারিটি গুলিতে বিশেষ দল পাঠাবে কেন্দ্র৷ সেই দলই আইনি নথি খতিয়ে দেখবে৷ প্রত্যন্ত কয়েকটি অঞ্চলে স্থানীয় প্রশাসনকে উদ্যোগ নিতে হবে৷ মন্ত্রী মেনকা গান্ধি নিজে প্রত্যেক রাজ্য প্রশাসনকে ফোন করে নির্দেশ জারি করেছেন৷ মিশনারিশ অব চ্যারিটি ছাড়াও বিভিন্ন চাইল্ড কেয়ার হোমগুলিও নজরে থাকবে বলে জানাচ্ছে মন্ত্রক৷

Advertisement

বড়সড় টাকার বিনিময়ে ৩টি শিশু বিক্রি করার অভিযোগ ঝাড়খণ্ডের মিশনারিশ অব চ্যারিটির বিরুদ্ধে৷ ৪ নম্বর শিশুকে বিক্রির সময় বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে৷ প্রতিষ্ঠিত সংগঠনের অন্দরে শিশু পাচার কতদিন ধরে চলছে তা এখনও রহস্যে ঘেরা৷

২০১৫ সালে Central Adoption Resource Authority (CARA)-র জুভেনাইল জাস্টিস আইন লঙ্ঘন করছে বেশ কয়েকটি চাইল্ড কেয়ার সংস্থা, অনাথ আশ্রম৷ আইনি নথি ছাড়াই চালাচ্ছে বেআইনি কার্যকলাপ৷ সেই কারণেই কোনও চাইল্ড কেয়ার হোম বাদ রাখতে চায় না কেন্দ্র৷ ২০১৭ সালে আইন সংস্কার করে সুপ্রিম কোর্ট জানায়, মিশনারিশ অব চ্যারিটি সহ প্রত্যেক চাইল্ড কেয়ারকে Central Adoption Resource Authority (CARA)-র সঙ্গে যুক্ত হতে হবে৷ সেই নিয়ম মেনে ২৩০০ চাইল্ড কেয়ার সংস্থা CARA-র সঙ্গে যুক্ত হয়েছে৷

কেন্দ্রের দাবি, এখনও বেশ কয়েকটি সংগঠন CARA-র আওতায় আসেনি৷ সেই কারণেই অবৈধ কাজ অবাধে চলছে৷ এই নিয়ে প্রত্যেক রাজ্যের শিশু কল্যাণ দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে মুখোমুখি বৈঠকে বসতে চান মেনকা গান্ধি৷ কড়া পদক্ষেপ করতে সফরসূচিও তৈরি করেছেন তিনি৷

----
--