কেপি-র কাছে ‘সুইচ হিট’ শটটা ঝালিয়ে নিতে চান মনোজ

দরজায় কড়া নাড়ছে আইপিএল সেভেন ৷ ঢাকায় টি-২০ বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার পরেই ক্রিকেটবিশ্ব ঢুকে পড়বে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের ‘ক্যাশ-রিচ’ টুর্নামেন্টে ৷ আগামী দেড় মাস যাতে বুঁদ হয়ে থাকবেন বিশ্বের তাবড় তাবড় ক্রিকেটাররা ৷ ব্যতিক্রম নন বাংলার প্রতিশ্রুতিমান ব্যাটসম্যান মনোজ তিওয়ারি ৷ আইপিএল সেভেনে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের জার্সিতে দেখা যাবে প্রাক্তন নাইটকে ৷ গত ফেব্রুয়ারিতে সপ্তম আইপিএল নিলামে মনোজকে কেনে তাঁর পুরনো ফ্র্যাঞ্চাইজি ডেয়ারডেভিলস ৷ এই দলেই রয়েছেন কেভিন পিটারসেন ৷ তাঁর প্রিয় ক্রিকেটারের সঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করার পাশাপাশি সুইচ-হিটের আবিষ্কারক কেপি-র কাছ থেকে এই শটটা একটু ঝালিয়ে নিতে চান মনোজ ৷ ১৫ জুন, ২০০৮ নিউ জিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ান ডে ম্যাচে প্রথম সুইচ হিট মেরে ক্রিকেটবিশ্বে হইচই ফেলে দিয়েছিলেন কেপি ৷ তার পর বেশ কয়েকবার সুইচ হিটে ছয় মেরেছেন ইংল্যান্ডের প্রাক্তন ব্যাটসমান ৷ কেপি-র মতো ভারতীয় ক্রিকেটে একমাত্র ‘সুইচ হিট’ মারতে পারেন মনোজ ৷ ডেয়ারডেভিলসের কন্ডিশন ক্যাম্পে যোগ দিতে সোমবারই দিল্লি উড়ে যাচ্ছেন বাংলার ডানহাতি ব্যাটসম্যান ৷ শুক্রবার সইদ মুস্তাক আলি জাতীয় টি-২০ ম্যাচের ফাঁকে সুশান্ত মণ্ডলের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় মনোজ তিওয়ারি

প্রশ্ন: আইপিএল-এর আগে জাতীয় টি-২০ টুর্নামেন্টে রানের মধ্যে থাকা নিঃসন্দেহে অ্যাডভান্টেজ ?
মনোজ: একদমই ঠিক কথা ৷ বড় রান না-পেলেও কোনও টুর্নামেন্টের আগে রানের মধ্যে থাকাটা ভীষণ জরুরি ৷ রান পেলে আত্মবিশ্বাস অনেকট বেড়ে যায় ৷ বড় দলের বিরুদ্ধে খেললে এই আত্মবিশ্বাস কাজে দেয় ৷ আইপিএল-এর ঠিক আগেই একই ফর্ম্যাটে রান পাওয়ায় খুশি ৷

প্রশ্ন: দিল্লি ডেয়ারডেভিলসে ফিরে কেমন লাগছে ?
মনোজ: দিল্লি ফ্র্যাঞ্চাইজি আমার উপর আস্থা রেখেছে ৷ এবার আমার দায়িত্ব ওদের প্রত্যাশাপূরণ করা ৷ চেষ্টা করব ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং তিনটি ডিপার্টমেন্টেই পারফর্ম করে দলকে জেতাতে ৷ সবচেয়ে ভাল কথা ড্রেসিংরুমের পরিবেশটা ভাল পাব ৷ সেখানে ক্রিকেটাররা মন খুলে খেলতে পারবে ৷

- Advertisement -

প্রশ্ন: তার মানে গত আইপিএলে কেকেআর-এর ড্রেসিংরুমের পরিবেশ ভাল ছিল না ?
মনোজ: ঠিক তাই ৷ ড্রেসিংরুমে এমন কিছু বিষয় রয়েছে, যে গুলো ঠিকঠাক না-থাকলে খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সে প্রভাব পড়ে ৷ দু’ বছর আগেও যেটা কেকেআর-এ ছিল না ৷ কিন্তু, গত আইপিএল নাইটদের ড্রেসিংরুমে খেলার পরিবেশ ছিল না ৷Preparing_the_switch_hit

প্রশ্ন: ডেয়ারডেভিলসের ড্রেসিংরুমের পরিবেশ ভাল থাকবে, এমনটা নিশ্চয় আশা করেন ?
মনোজ: অবশ্যই ৷ কারণ প্রথম দু’টি আইপিএল-এ আমি দিল্লির হয়ে খেলেছি ৷ ড্রেসিংরুমের পরিবেশ খারাপ ছিল না ৷

প্রশ্ন: কোচ হিসেবে গ্যারি কার্স্টেনকে পাওয়া কতটা অ্যাডভান্টেজ ?
মনোজ: বিরাট ৷ গ্যারির কোচিংয়ে কোনও দিন খেলিনি ৷ সফল কোচ ৷ আশা করি কার্স্টেনের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখতে পারব ৷

প্রশ্ন: দলে আপনার প্রিয় ক্রিকেটার কেভিন পিটারসেন রয়েছেন, ওর কাছ থেকে নিশ্চয় ‘সুইচ হিট’ শটটা ঝালিয়ে নেবেন ?
মনোজ: কেপি আমার ফেভারিট ব্যাটসম্যান ৷ ওকে দেখেই এই শটটা মারতে শিখেছি ৷ চেষ্টা করব ওর কাছ থেকে আর ভালো করে সুইচ হিট শটটা শিখে নিতে ৷

প্রশ্ন: দিল্লি আপনাকে নিলামে কেনার পর কেপি-র সঙ্গে কথা হয়েছে ?
মনোজ: কথা হয়নি ৷ তবে হোয়াটসঅ্যাপে আমাদের একটা গ্রুপ আছে যাদের মধ্যে মেসেজ হয় ৷ সে ভাবে আলোচনা হয়নি ৷ আর কয়েকদিনের মধ্যেই আমাদের ক্যাম্প শুরু হবে সেখানেই সবার সঙ্গে দেখা হবে ৷

প্রশ্ন: গত আইপিএল-এ দিল্লির ব্যাটিং পরামর্শদাতা ছিলেন ভিভ রিচার্ডস ৷ এবারও যদি ভিভকে পান নিশ্চয় ব্যাটিং টিপস নেবেন ?
মনোজ: জানি না রিচার্ডস থাকবেন কি না ৷ থাকলে তো ভালই হয় ৷ ওনার মতো কিংবদন্তি ব্যাটসম্যানের কাছ থেকে শিখতে পারলে তার থেকে আর ভাল কিছু হবে না ৷

প্রশ্ন: আবু ধাবিতে এর আগে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে ?
মনোজ: না, আগে কোনও দিন আবু ধাবিতে খেলিনি ৷ তবে ছোটবেলা থেকে শারজায় খেলা দেখিছি ৷ শুনেছি, ওখানকার তাপমাত্রা এবং পরিবেশ অনেকটা কলকাতার মতই ৷ ওখানে খেলতে কোনও অসুবিধা হবে বলে মনে হয় না ৷

প্রশ্ন: আইপিএল-কেই নিশ্চয় জাতীয় দলে ফেরার মঞ্চ হিসেবে ব্যবহার করতে চাইবেন ?
মনোজ: হাঁটুর অস্ত্রোপচারের জন্য এবার রঞ্জি খেলতে পারিনি ৷ আইপিএল-এর আগে বিজয় হাজারে এবং জাতীয় টি-২০ ট্রফিতে খেলায় অনেক সুবিধা হয়েছে ৷ এখন পায়ে কোনও সমস্যা নেই ৷ লক্ষ্য থাকবে আইপিএলে পারফর্ম করে ফের জাতীয় দলের জার্সিটা ফিরে পেতে ৷

Advertisement
---