মমতার ব্রিগেড দেখতে দু’দিন আগেই শহরে প্রচুর মানুষ

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ১৯ জানুয়ারি তৃণমুলের কলকাতার ব্রিগেড সমাবেশ৷ তার দুদিন আগে থেকেই লোকসমাগম হতে শুরু করেছে শহরে৷ ইতিমধ্যেই বিধাননগর মেলা প্রাঙ্গনে অনেক মানুষ চলে এসেছেন৷ তাদের যাতে থাকা-খাওয়ার কোনও অসুবিধা না হয় তা ক্ষতিয়ে দেখতে বুধবার মেলা প্রাঙ্গনে আসেন দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু৷

এদিন দমকল মন্ত্রী জানান, বিধাননগর মেলা প্রাঙ্গন সাড়ে তিন লক্ষ স্কোয়ার ফিট জায়গার ওপর ৫০টি টেন্টে মানুষের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ ৩০-৩৫ হাজার মানুষ এখানে থাকতে পারবে৷ পুরুষ ও মহিলাদের জন্য আলাদা আলাদা থাকা, খাওয়া ও স্নানের ব্যবস্থা করা হয়েছে৷

১৯ জানুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশের দিন বিধাননগর মেলা প্রাঙ্গন থেকে বাসে করে সমাবেশে নিয়ে যাওয়া হবে৷ সমাবেশ শেষে ফের তাদেরকে বাসে করেই বিধাননগর মেলা প্রাঙ্গনে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হবে৷ এছাড়া মেলা প্রাঙ্গনে আটোসাটো নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ বসানো হয়েছে প্রচুর সিসি ক্যামেরা৷ রাখা হয়েছে বেশ কয়েকটি দমকলের গাড়ি৷ পুলিশের পাশাপাশি নিরাপত্তার দায়িত্বে মোতায়েন রয়েছে বেসরকারি সংস্থার নিরাপত্তা কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবক৷

ব্রিগেডে দলনেত্রীর বার্তা শুনতে যাঁরা শহরে আসছেন, তাঁদের থাকা-খাওয়ারও ব্যবস্থা করেছে শাসক দল৷ এবার গীতাঞ্জলি স্টেডিয়াম,ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্র, উত্তীর্ণ, বিধাননগর মেলা প্রাঙ্গন ও বড়বাজার এলাকার বিভিন্ন ধর্মশালায় থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশের দিন যান চলাচলেও নিয়ন্ত্রণ করা হবে৷

বেলা ১২টায় শুরু হবে ব্রিগেড মূল অনুষ্ঠান৷ সকাল নটার পর থেকেই হাজরা-পার্কস্ট্রিটের দিক থেকে ধর্মতলামুখী সব গাড়ি নিয়ন্ত্রয়ণ করা হবে। বিধাননগর মেলা প্রাঙ্গনের অস্থায়ী ক্যাম্পে উত্তরবঙ্গ থেকে আসা মানুষ থাকবে৷ বিশেষ করে দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, মালদা, আলিপুরদুয়ার ও দুই দিনাজপুর৷