চেয়ার কারখানায় ভয়াবহ আগুন, আটকে ৩ শ্রমিক

বারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগণার ঘোলায় একটি চেয়ার কারখানায় ভয়াবহ আগুন৷ ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে দমকলের ২৫টি ইঞ্জিন৷ পাশেই রয়েছে বেশ কিছু বাড়ি৷ গোটা এলাকা ছেয়ে গিয়েছে কালো ধোঁয়ায়৷সোমবার দুপুর ১২ টা নাগাদ ঘোলার বোর্ড ঘর এলাকার একটি চেয়ার তৈরির কারখানায় এই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। রোজকার মতনই কারখানায় চেয়ার তৈরি র কাজ চলছিলো। তখন কারখানার কর্মরত শ্রমিক রাই প্রথম কারখানায় আগুন দেখতে পান।

সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় দমকল ও ঘোলা থানায়। দমকলে খবর দেওয়ার সাথে সাথে শ্রমিকরা নিজেরাও জল দিয়ে আগুন নি়য়ন্ত্রণের আনার চেষ্টা করতে থাকেন। কিন্তু কারখানায় প্রচুর দাহ্য বস্তু থাকায় আগুন ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ে। আগুনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে দ্রুত পৌঁছয় দমকলের ১২টি ইঞ্জিন। কিন্তু আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারলে পরে আরো ১৩ টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মোট ২৫ টি ইঞ্জিন ৩ ঘ্ন্টার চেষ্টায় আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনে।

- Advertisement -

এই অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু। আগুন লাগার পর থেকেই ৩ জন শ্রমিক ওই কারখানার ভেতরে আটকে আছে বলে শোনা যাচ্ছিলো। তবে আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনলেও ভেতরে কেউ আটকে আছে কি না তা সুনিশ্চিত ভাবে বলতে পারছেন না দমকলের কর্মীরা বা প্রশাসন। কি কারনে এই আগুন লেগেছে তাও সঠিক ভাবে বলতে পারছেন না দমকলের আধিকারিকরা। শর্ট সার্কিটের কারনে এই আগুন কি না তা আগুন না নেভা পর্যন্ত জানানো যাবে না বলে খবর৷

তবে এই আগুনের ফলে কয়েক লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে অনুমান। এই প্রথম বার নয়, বেশ কয়েক বছর আগেও এই চেয়ার কারখানায় অগ্নিকাণ্ড হয় বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি। ঘন বসতি পূর্ণ এলাকায় এই ধরনের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ও আতঙ্ক ছড়িয়েছে বোর্ড ঘর এলাকায়।