লখনউ: আর্থিকভাবে দুর্বল উচ্চশ্রেণির জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণের প্রস্তাব দিয়েছে কেন্দ্র৷ এই প্রস্তাবের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তুললেও সংসদের দুকক্ষেই এই বিলকে সমর্থন করবে তাঁর দল৷ জানিয়ে দিলেন বহুজন সমাজবাদী নেত্রী মায়াবতী৷ তাঁর এই সমর্থন নিয়েই রাজনৈতিক মহলে ছড়িয়েছে নানা জল্পনা৷

আরও পড়ুন: ‘তৃণমূলকে পুলিশ, তোর টিমে, তোর পাশে …’

এদিন মায়াবতী বলেন, ‘‘লোকসভা ভোটের আগে এই প্রস্তাব আসলে বিজেপির ‘রাজনৈতিক কৌশল’৷ সরকার আগে কেন এই প্রস্তাব দিল না? লোকসভা আগে এই প্রস্তাবের পিছনে রয়েছে পলিটিক্যাল স্টান্ট৷’’ তবে বিএসপি নেত্রী বলেন, আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া সংখ্যালঘুদেরও সংরক্ষণের তালিকায় আনা উচিত৷ দেশে তাদের সংখ্যা বাড়ছে৷ ফলে কেন্দ্রের নতুন করে ‘সংরক্ষণ’ নিয়ে ভেবে দেখা উচিত৷

সোমবার সংরক্ষণ নিয়ে কেন্দ্রের প্রস্তাব প্রকাশ্যে আসতেই দেশজুড়ে হইচই শুরু হয়৷ লোকসভা ভোটকে কেন্দ্র করে মোদী সরকারের এই সিদ্ধান্ত বলে অভিযোগ করে বিরোধীরা৷ রাজ্যসবায় এই বিল আটকাতে ফের একবার বিরোধীরা একজোট হতে পারে বলে যখন মনে হচ্ছে তখনই বেঁকে বসলেন মায়াবতী৷ জানিয়ে দিলেন লোকসভা ও রাজ্যসভায় এই সংরক্ষণ ইস্যুতে বিল আনলে বহুজন সমাজবাদী পার্টি তা সমর্থন করতে পারে৷

আরও পড়ুন: ২২টি ভাসমান ব্রিজ নিয়ে ভারতেই বসল বিশ্বের বৃহত্তম অস্থায়ী শহর

গো-বলয়ের তিন রাজ্য মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়ে সরকার গড়তে কংগ্রেসকে সমর্থন করছেন মায়াবতী৷ উত্তরপ্রদেশে বুয়া-বাবুয়া জোট প্রায় চূড়ান্ত যোগীর উত্তরপ্রদেশে৷ এই পরিস্থিতিতে বহুজন সমাজবাদী পার্টি নেত্রীর বিজেপির আনা সংরক্ষণের প্রস্তাবকে সমর্থন যথেষ্ট ইঙ্গিবাহী বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা৷

দলিত বিরোধী সমস্ত ইস্যুতে গর্জে ওঠেন মায়বতী৷ তাঁকে সবাই চেনে দলিত নেত্রী হিসাবেই। প্রশ্ন, হঠাৎ উচ্চশ্রেণির জন্য সরকারি চাকরি, পড়াশোনায় ১০ শতাংশ সংরক্ষণের সিদ্ধান্তকে কেন সমর্থন করছেন তিনি৷ রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, ১৯শের ভোট মায়াবতীর রাজনৈতিক জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷

আরও পড়ুন: ধর্মঘটে বাণিজ্য নগরী মুম্বইয়ের জনজীবন স্তব্ধ

২০১৪-এর লোকসভায় একটিও আসন পায়নি তাঁর দল৷ ভোট কমে যায় প্রায় ২ শতাংশ৷ উচ্চবর্ণের ভোট একজোট হয়ে গিয়ে পড়ে বিজেপির ঝুলিতে৷ অন্যথা হয়নি উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা ভোটেও৷ মোদী ক্যারিশ্মা কমেছে ঠিকই৷ তবে যোগী রাজ্যে জাতপাতের মাপকাঠিতে ভোট হয়৷ ফলে লোকসভার আগে উচ্চবর্ণের ভোটারদেরবার্তা দিতেই মায়াবতীর এই সমর্থন বলে মনে করা হচ্ছে৷

--
----
--