স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: নামেই তালপুকুর, কিন্তুও ঘটিও ডোবে না।

বর্তমান সময়ে বহু মানুষের মুখে শোনা যায় এই সংলাপ। আরও বেশি শোনা যায় ব্যবসায়িদের মুখে। আসল বিষয়টি হচ্ছে দুঃসময়। একসময় ভালো পবস্থা থাকলেও, এখন আর নেই। কিন্তু রয়ে গিয়েছে ভালো সময়ের করা কিছু স্থাবর সম্পত্তি।

Advertisement

সেই সকল স্থাবর সম্পত্তি থেকে কোনও আয় না হলেও নিয়মিত দিতে হয় কর। সেই সঙ্গে রক্ষণাবেক্ষণের আরও কিছু খরচ তো আছেই। এই ধরণের জমি মালিকদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করতে চলেছে হাওড়া পুর নিগম। শুক্রবার এমনই আশ্বাস দিয়েছেন হাওড়ার মেয়র ডাঃ রথীন চক্রবর্তী।

হাওড়া পুরনিগম এলাকায় বসবাসকারী যাদের এক কাঠা বা তারও কম জমি রয়েছে এমন গরিব মানুষদের জন্য কিছু সুবিধা দেওয়ার বিষয় সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনার আশ্বাস দিলেন মেয়র। এদিন হাওড়া পুরনিগমের অনুমোদন প্রাপ্ত বিল্ডিং সার্ভিয়াস অ্যাসোসিয়েশনের ৩২ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় আয়োজকদের এই প্রস্তাব গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনার আশ্বাস দেন হাওড়ার মেয়র ডাঃ রথীন চক্রবর্তী।

ওই বার্ষিক সাধারণ সভায় উপস্থিত ছিলেন পুরনিগমের মেয়র পারিষদ সদস্য ( শিক্ষা ) দিব্যেন্দু মুখোপাধ্যায়, পুর কমিশনার বিজিন কৃষ্ণা, এলবিএস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডঃ দেবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় প্রমুখ। এদিন এলবিএস-এর পক্ষ থেকে হাওড়ার গরিব মানুষ যাদের এক কাঠা বা তার চেয়ে কম জমি আছে, তাদের জন্য কিছু সুবিধা দেওয়ার জন্য মেয়রের কাছে আবেদন করা হয়। মেয়র বিষয়টি সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করার আশ্বাস দিয়েছেন।

----
--