স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: শহিদ বীরেন্দ্রনাথ দত্তগুপ্তের ১২৯ তম জন্মদিবস পালন করল স্মৃতি রক্ষা কমিটি৷ এর পাশাপাশি তাঁর মূর্তিতে শ্রদ্ধা জানালেন এই কমিটি৷

বুধবার জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদ ক্যাম্পাসের মধ্যে অবস্থিত স্বাধীনতা সংগ্রামী বীরেন্দ্রনাথ দত্তগুপ্তের মূর্তিতে ফুল দিয়ে, প্রদীপ প্রজ্জলন ও শহীদের স্মৃতি চারনা, জীবন কাহিনি তুলে ধরেন স্মৃতি রক্ষা কমিটির সভাপতি প্রশান্ত নাথ চৌধুরী৷ মাল্যদান করেন শিক্ষাবিদ শ্রী উমেশ শর্মা। পুষ্পার্ঘ নিবেদন করেন শ্রী অঞ্জন দাস, আহ্বায়ক ও অন্যান্য বিশিষ্ট নাগরিক বৃন্দ। এদের পাশাপাশি শ্রদ্ধা জানান উপস্থিত স্মৃতি রক্ষা কমটির বাকি সদস্যরাও।

জলপাইগুড়ি প্রথম শহিদ বীরেন্দ্রনাথ দত্তগুপ্ত ২০ জুন ১৮৮৯ জন্ম গ্রহন করেন বাংলাদেশের বিক্রমপুর জেলায়। এরপর তিনি ১৯ বছর বয়সে জলপাইগুড়ি জেলা স্কুলে এসে পড়াশোনা শুরু করেন। পড়াশোনা করতে করতে বিপ্লবী চিন্তাভাবনা ও বিপ্লবী চেতনাকে সামনে রেখে ঝাপিয়ে পরেন তিনি। সেই সময়কার এক ডি এস পি কে বিপ্লবী আন্দোলনকে বিরোধিতা শুরু করেন। সেই ডি এস পি কে খুন করেন অমর শহিদ বীরেন্দ্রনাথ দত্তগুপ্ত। এরপর তাকে গ্রেফতারও করা হয়। চলে বিচারের নামে প্রহশন।

১৯১০ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি তাকে ফাঁসি দেওয়া হয়। বুধবার তাঁকে স্মরন করা হয় এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে। এদিন জলপাইগুড়ি এই স্মৃতি রক্ষা কমিটি দাবি করেন শুধু বীরেন্দ্রনাথ দত্তগুপ্ত নয়৷ জলপাইগুড়িতে তাঁর মতো আরও শহিদ রয়েছে৷ যারা জেলাবাসীর স্মৃতির আরালে রয়েছে৷ তাঁদেরও স্মরন করে শ্রদ্ধা জানানো দরকার৷

----
--