মুম্বই: এদেশে বহুবিবাহ প্রথা বিলুপ্তি প্রায় অনেকবছর৷ কিন্তু এদেশেই এমন এক গ্রাম রয়েছে যেখানে অধিকাংশ পুরুষই কমবেশি তিনজন স্ত্রীকে নিয়ে সংসার করেন‌৷

গ্রামের নাম দেঙ্গানমল। অবস্থান মহারাষ্ট্রে, মুম্বই থেকে মাত্র ১৫০ কিমি দূরত্বে। না, নিছক ভোগলালসা মেটানোর জন্য এগ্রামের পুরুষরা বহুবিবাহের পথ তাঁরা বেছে নেন না। বরং একাধিক বিয়ে করার একমাত্র কারণ হচ্ছে পরিবারে জল আনার লোকের সংখ্যা বাড়ানো।

দেঙ্গানমল এমন একটি গ্রাম, যেখানে প্রবল জলকষ্ট। প্রত্যন্ত এই গ্রামে জলের একমাত্র উৎস কয়েকটি কুয়ো। সেই সমস্ত কুয়ো গ্রীষ্মে শুকিয়ে যায়। তখন দূরবর্তী কুয়ো বা নদী থেকে জল বয়ে আনা ছাড়া উপায় থাকে না। গ্রামবাসীরা জানাচ্ছেন, গ্রীষ্মকালে জল বয়ে আনার জন্যে যাতায়াত মিলিয়ে প্রায় ১২ ঘন্টা হাঁটতে হয়। মহিলারাই এই জল আনার কাজ করে থাকেন। প্রতি বার ১৫ লিটারের দু’টি কলসি বয়ে আনেন মহিলারা।

- Advertisement -

এমতাবস্থায় এই গ্রামের পুরুষরা বুঝে গিয়েছেন, বহুবিবাহই জল সমস্যা মেটানোর সহজতম রাস্তা। বাড়িতে বউয়ের সংখ্যা যত বাড়বে, তত বাড়বে জল আনার হাত ও কলসির সংখ্যা। কাজেই অনেকেই দু’টি কিংবা তিনটি স্ত্রী নিয়ে ঘর করছেন দেঙ্গানমলে।

ঘরের বউদের এই গুরুত্বের সুবাদে গ্রামে বিশেষ সম্মান পান বিবাহিতা মহিলারাও। বিয়ের জন্য কন্যাসন্তানসম্পন্না বিধবা কিংবা বিবাহবিচ্ছিন্নাদের কদর বেশি। কারণ ঘরে কন্যাসন্তান আসা মানে ঘরের কাজকর্ম সামলাতে পারবে সেই মেয়ে।

বহুবিবাহ যে সমস্যার সমাধান নয়, তা মানছেন গ্রামবাসীরাও। তাঁদের বক্তব্য, প্রশাসনের কাছে বহু আবেদন-নিবেদন করেছেন তাঁরা এই বিষয়ে। কিন্তু সরকার তাঁদের প্রতি উদাসীন।

Advertisement
---