শিলিগুড়ি: শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ তোলার তিন দিনের মাথায় ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে সেই তৃণমূলের উপরই আস্থা রাখছে কামতাপুর প্রগ্রেসিভ পার্টি (কেপিপি)৷ শুক্রবার সমস্ত জল্পনা উস্কে দিয়ে তৃণমূলের মন্ত্রীকে পাশে বসিয়েই কেপিপির সভাপতি অতুল রায় জানিয়ে দিলেন, বিজেপিকে নয়, এবার ভোটে তৃণমূলকেই তাঁরা সমর্থন জানাবেন৷ এই অতুল-বাবুই শিলিগুড়িতে সাংবাদিক ডেকে ঘটা করে মন্তব্য করেছিলেন, ‘‘এবার আর তৃণমূলকে নয়, বিজেপিকেই সমর্থন জানাবে কেকেপি৷ কারণ, তৃণমূল সরকার আমাদের আন্দোলনকে কোনও গুরুত্বই দেয়নি৷ কামতাপুরি ভাষাকে সরকার স্বীকৃতিও দেয়নি৷’’

এই ঘোষণার তিন দিনের মাথায় ১৮০ ডিগ্রি ডিগবাজি খেয়ে তৃণমূলকে সমর্থন করার কথা জানালেন কেপিপির সভাপতি অতুল রায়। কামতাপুরি ভাষাকে স্বীকৃতি দেওয়ার আশ্বাস মেলায় বিজেপিকে সমর্থন করার সিদ্ধান্ত থেকে ঘুরে গিয়ে বিধানসভা নির্বাচনে কামতাপুর প্রগ্রেসিভ পার্টির তৃণমূলকে সমর্থন করার কথা জানালেন কেপিপির সভাপতি অতুল রায়। শুক্রবার শিলিগুড়িতে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন-মন্ত্রী গৌতম দেবের সঙ্গে নিয়ে যৌথ সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে অতুল বাবু জানান, তাঁদের প্রধান দাবি কামতাপুরি ভাষার স্বীকৃতি। তৃণমূল তাঁদের সেই দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে। তাই তাঁরা তৃণমূলকেই সমর্থনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, দিন তিনেক আগেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে জানিয়েছিলেন, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে সমর্থন করবে কেপিপি। কিন্তু, বৃহস্পতিবার গৌতম দেবের সঙ্গে সাক্ষাৎ কারতে অতুল রায় তাঁর বাড়িতে যান৷ মুহূর্তেই রাজনৈতিক মহলে জল্পনা শুরু হয়ে যায়৷ প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, তবে এবার কি বিজেপিকে সমর্থন করার পথ থেকে পিছিয়ে আসছেন অতুল রায়? সেই জল্পনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ধোঁয়াশা কাটালেন কেকেপি সভাপতি৷ এদিন মন্ত্রী গৌতম দেব জানান, কেপিপির ভাষার স্বীকৃতি দেওয়ার দাবিকে তাঁরা সমর্থন করেছেন। নির্বাচনের পর তাঁরা ক্ষমতায় এলেই এর প্রক্রিয়া শুরু হবে বলেও জানা উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী।