বার্সার অধিনায়ক মেসি

বার্সেলোনা: অধিনায়ক হওয়ার দৌড়ে ছিলেন জেরার্ড পিকে, সার্জিও রবের্তো, সার্জিও বাসকুয়েটস, কিন্তু অধিনায়ক হিসেবে ফুটবল ঈশ্বরকেই বেছে নিল বার্সেলোনা৷ ইনিয়েস্তার পর বার্সার নতুন অধিনায়ক হলেন লিও মেসি৷ ২০১৫ সালে বার্সেলোনার দ্বিতীয় অধিনায়ক হিসেবে মেসির নাম ঘোষণা করা হয়েছিল৷ তাই ইনিয়েস্তা ক্লাব ছাড়ার পর মেসির অধিনায়ক হওয়া একপ্রকার নিশ্চিত ছিল৷ বার্সার হয়ে ৪১৮টি ম্যাচে ৩৮৩টি গোল করেছেন মেসি৷

বিশ্বকাপে আর্জেন্তিনার অধিনায়ক ছিলেন লিও৷ তার আগেও দেশকে নেতৃত্ব দেওয়ার অভিজ্ঞতা রয়েছে এলএম-টেনের৷ বিশ্বকাপের পরপর ক্লাব বদল করেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো৷ খবর ছড়িয়েছিল ক্লাব বদল করতে চলেছেন মেসিও৷ ইতালিতে জুভেন্তাসের প্রতিদ্বন্দ্বী ইন্টার মিলান বার্সোলোনার তারকাকে দলের আনার জন্য তৈরি বলেও জল্পনার সৃষ্টি হয়েছিল৷ মেসিকে অধিনায়ক করে সেই সমস্ত জল্পনারই যেন জবাব দিল বার্সেলোনা৷

আরও পড়ুন:নিজের জার্নির ভিডিও বানিয়ে অ্যাথলিটদের উৎসাহ দিলেন বিন্দ্রা

২০০৫ থেকে ২০১৮ এই ১৩ বছর বার্সেলোনায় রয়েছেন আর্জেন্তিনার ফুটবল জাদুকর৷ জুনিয়র ফুটবল ধরলে সময়টা বেড়ে দাঁড়ায় আরও দু’বছর৷ ৩১ বছর বয়সি মেসি ২০২১ পর্যন্ত বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ৷ জল্পনা যাই হোক লিও স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে, ইউরোপে নিজের ফুটবল কেরিয়ার শেষ করবেন বার্সায় থেকেই৷ বার্সেলোনা থেকে অবসর নেওয়ার পর আর্জেন্তিনায় ক্লাব ফুটবল খেলতে চান তিনি এবং সেটা নিউয়েলস ওল্ড বয়েজের হয়েই৷

বিশ্বকাপের আগেই মেসি জানিয়েছিলেন, ‘এটা নিশ্চিত যে, ইউরোপে বার্সেলোনাই হবে আমার একমাত্র ক্লাব৷ তবে আমি বরাবরই বলে আসছি কোনও এক সময়ে আর্জেন্তিনায় ক্লাব ফুটবল খেলতে চাই৷ আমি জানি না শেষমেশ এমনটা হবে কিনা, তবে এটা আমার দীর্ঘদিনের ইচ্ছা৷ আর্জেন্তিনায় খেললে অন্য কোথাও নয়, নিউয়েলসেই খেলতে চাই৷ অন্তত ছ’মাসের জন্য হলেও নিউয়েলসের হয়ে মাঠে নামতে চাই৷’

আরও পড়ুন:বৃষ্টির জন্য বন্ধ খেলা, ২৫০ রানে এগিয়ে ইংল্যান্ড

বিশ্বকাপে সেভাবে সফল না হলেও গত মরশুমের ক্লাব ফুটবলে অনবদ্য পারফর্ম করেছিলেন লিও৷ চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রোনাল্ডোকে ছাপিয়ে পঞ্চমবার গোল্ডেন শ্যু পুরস্কার জিতেছিলেন বার্সার নম্বর টেন৷ ইউরোপের সবকটি লিগে ২০১৭-১৮ মরশুমে সর্বোচ্চ গোল স্কোরার হিসেবে এই খেতাব জেতেন বার্সার তারকা ফরোয়ার্ড৷

গত মরশুমের লা লিগায় মোট ৩৪টি গোল করেছেন মেসি৷ টানা দুবার এবং মোট পাঁচবার এই গোল্ডেন শ্যু নিজের ওয়ার্ডরোবে ভরেছেন ফুটবলের বর্তমান রাজপুত্র৷ ২০১৭-১৮ এবং ২০১৬-১৭ মরশুম ছাড়াও যথাক্রমে ২০০৯-১০, ২০১১-১২, ২০১২-১৩ মরশুমেও এই পুরস্কার জিতেছিলেন ৷ পাঁচবারই বার্সার হয়ে গোল্ডেন শ্যু জিতলেন আর্জেন্তাইন ফরোয়ার্ড৷ এই মরশুমের শুরু থেকেই লিওর কাছ থেকে অধিনায়কোচিত ফুটবল আশা করছেন বার্সা এবং মেসির সমর্থকরা৷

আরও পড়ুন:বড় জয় দিয়ে ইপিএল শুরু চেলসির

----
-----