ব্ল্যাকবক্স অমিল: অজানা থাকবে এমএইচ৩৭০ নিখোঁজ রহস্য

পারথ: একটা দিনের সঙ্গে পার হচ্ছে রহস্য উন্মোচনের পথ! আর মাত্র কয়েকটা ঘণ্টা৷ তারপর আর কোনও দিনও জানা যাবে না, ঠিক কীকারণে মাঝআকাশ থেকে উধাও হয়েছিল এমএইচ ৩৭০ বিমান৷ কীসের জন্য পথ পরিবর্তন করেছিল ওই মালয়েশিয়ান বিমান৷ কেন হারিয়ে গেলেন ২৩৯জন যাত্রী এবং ক্রু সদস্য৷  বিমান উদ্ধার হলেও এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর আর কোনও দিনই জানতে পারবে বিশ্ববাসী৷
এর জন্য একটাই কারণের কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা৷ তারা বলছে, একটা করে দিন পার হয়ে যাচ্ছে৷ আর ততই ক্ষীণ হচ্ছে আশা-ভরসা৷ কারণ, মালয়েশিয়া বিমান ধ্বংস হয়ে গেলে, তার ব্ল্যাক বক্সটি এখনও সচল রয়েছে৷ কিন্তু, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বিমানের ব্ল্যাক বক্স বা ফ্ল্যাইটের রেকর্ডারের মেয়াদও ফুরিয়ে যাচ্ছে৷ তারা জানাচ্ছেন, কোনও বিমান ধ্বংস হয়ে গেলেও, তার ব্ল্যাক বক্স ৩০দিন পর্যন্ত সিগন্যাল পাঠাতে পারে৷ ব্ল্যাক বক্সটি ওই সময় পর্যন্ত জীবিত থাকে৷ থাকে অক্ষত৷ যাতে বিমানের সমস্ত তথ্য সংরক্ষিত থাকে৷ কিন্তু, ব্ল্যাক বক্স অচল হয়ে গেলে, সমস্ত তথ্যই মুছে যায়৷  ৮ মার্চ থেকে মালয়েশিয়ান বিমান বোয়িং ৭৭৭৷ হাতে মাত্র আর তিন-চারটে দিন৷ এরপর বিমানের ব্ল্যাক বক্স উদ্ধার না হলে, আর কোনও দিনও জানা যাবে না বিমান নিখোঁজের রহস্য৷ flight-recorder-general
অন্যদিকে, ২৩৯জন যাত্রী নিয়ে উধাও হয়ে যাওয়া মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের এমএইচ ৩৭০ সন্ধানের জন্য অস্ট্রেলিয়ার পারথের সামরিক ঘাঁটিতে একটি অনুসন্ধানকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে৷ এই অপারেশনের নাম  দেওয়া হয়েছে ‘মানব ইতিহাসে সবচেয়ে জটিল’ অনুসন্ধান৷ বৃহস্পতিবার এই অনুসন্ধান কেন্দ্রটি পরিদর্শন করেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজ্জাক৷ পরে তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘নিখোঁজ বিমান সংক্রান্ত সুনির্দিষ্ট উত্তর না পাওয়া পর্যন্ত আমরা থামব না।’ তিনি মনে করেন, বোয়িং ৭৭৭ বিমানটি ভারত মহাসাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে। নিখোঁজ ওই বিমানের রহস্য আর কোনও দিনই হয়ত জানা যাবে না বলে মনে করা  হচ্ছে৷ তবে,  নাজিব দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, ‘আমরা এর রহস্য উদঘাটন করতে চাই এবং নিখোঁজ যাত্রীদের পরিবারকে তা জানাতে চাই।

————————————————————————————————————————————–

----
-----

Comments are closed.