(ফাইল ছবি)

নিবেদিতা দে, কলকাতা: একুশের মঞ্চেই তৃণমূল সুপ্রিমো ঘোষণা করেছিলেন ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেড করবে তৃণমূল কংগ্রেস। যেখানে অবিজেপি সব দল গুলোকেই আমন্ত্রণ জানানো হবে বলেও জানান তিনি। ১৯ এর এই ব্রিগেডকে কেন্দ্র করে তৃণমূল নেতারা দিকে দিকে জোরদার প্রচার সভা শুরু করেছেন ইতিমধ্যেই।

এবার সেই ব্রিগেডের প্রচারের অঙ্গ হিসেবেই উত্তর কলকাতার শ্যামবাজার এ বড়ো সভা করবেন রাজ্যের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দোপাধ্যায়। আগামী ১১ জানুয়ারি সেই সভাতে অভিষেক ছাড়াও থাকবেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বরা। থাকবেন উত্তর কলকাতার সাংসদ, বিধায়ক থেকে তৃণমূল স্তরের সব নেতৃত্বরা।

পড়ুন: পিকনিক আর পার্টি এক নয়, মমতার ভরাডুবিতে কটাক্ষ সোমেনের

উত্তরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের এটাই প্রথম সভা। সূত্রের খবর, দীর্ঘদিন ধরেই উত্তর কলকাতার বিভিন্ন নেতারা অভিষেককে একটি সভা করার জন্য অনুরোধ করে আসছিলেন। অবশেষে তিনি রাজি হয়েছেন ১১ জানুয়ারি সেই সভা করতে।

উত্তর কলকাতার এক তৃণমূল নেতার কথায়, যুবনেতার এই সভাকে কেন্দ্র করে এখানে উন্মাদনার ঝড় বইছে। কারণ যুব সমাজ তো বটেই এখন রাজ্য নেতৃত্বও অভিষেকের ভাষণে মোহিত। তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক নেতার কথায়, ১৯ জানুয়ারি মমতার ব্রিগেড, আর ১১ জানুয়ারি মমতার উত্তরসূরি যুবরাজ অভিষেকের মিনি ব্রিগেড।

পড়ুন: ফুটপাত দখল মুক্ত করতে চলছে পুরসভার অভিযান

জানা গিয়েছে, ১৯৯৭ সালে যখন তৃণমূল কংগ্রেস প্রথম তৈরি হয় সে বছরই ২৯ ডিসেম্বর এই শ্যামবাজারেই প্রথম জনসভা করেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলের এক নেতার কথায়, ‘উত্তরের এই সভার অনেক ইতিহাস রয়েছে। এই জনসভাতেই দিল্লির কংগ্রেস নেতা মনিশঙ্কর রায় তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেন। সে বছরই পার্লামেন্ট ইলেকশনে আমরা ৯ টি আসন পেয়েছিলাম।’

তৃণমূলের বিভিন্ন নেতারাই ১৯ এর ব্রিগেডকে নিয়ে বেশ ব্য়স্ত। বিভিন্ন জেলায় ঘুরে ঘুরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সভা করতে দেখা গিয়েছে। তবে কলকাতায় এটাই প্রথম। তাই এই সভাকে কেন্দ্র করে উন্মাদনার পারদ চড়ছে তৃণমূল স্তরে, এমনটাই জানা গিয়েছে। উন্মাদনা তো রয়েছে, তবে মমতার ব্রিগেডের আগে যুবরাজের এই মিনি ব্রিগেড কতটা সাফল্য আনতে পারে এখন সেটাই দেখার।