চকলেট দেওয়ার নামে যৌন নিগ্রহ নাবালিকার

মন্দারমণি: ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ৷ চকলেট ও বাদাম ভাজা দেওয়ার নামে যৌন নির্যাতন করা হয় ওই নাবালিকাকে বলে অভিযোগ৷ ওই নাবালিকার পরিবার সূত্রে খবর এলাকারই দোকানে বাড়ির কিছু জিনিস কিনতে পাঠানো হয় ওই ছাত্রীকে৷

অভিযোগ এই ব্যক্তি তখনই তাকে যৌন নিগ্রহ করে৷ অভিযোগের ভিত্তিতে নাবালিকার মেডিক্যাল টেস্টের পাশাপাশি অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে মন্দারমণি কোস্টাল থানার পুলিশ।

উল্লেখ্য গত ২৫ আগস্ট দুপুর ১টা নাগাদ সুবীর খালুয়ার দোকানে রসুন কিনতে যায় নাবালিকা। অভিযোগ, সেই সময় নাবালিকাকে একা পেয়ে চকোলেট, বাদাম ভাজা দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে তাকে নিজের দোকানের মধ্যে ডেকে নেয় এবং যৌন নির্যাতন করে। সুবীর খালুয়ার এলাকার একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি। ফলে তার হুমকির ভয়ে মুখ বন্ধ রেখেছিল নির্যাতিতা।

- Advertisement -

গত রবিবার সন্ধায় নাবালিকা অসুস্থ হয়ে পড়লে ঘটনাটি জানাজানি হয়। চিকিৎসার জন্য রাতেই পরিবারের লোকেরা স্থানীয় বড়রাঙ্কুয়া হাসপাতালে নিয়ে যায় ওই নাবালিকাকে৷ অভিযুক্ত সুবীরের নামে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের হয় মন্দারমণি কোস্টাল থানায়।

অভিযোগ পেয়েই সোমবার নির্যাতিতার মেডিক্যাল টেস্ট করিয়েছে পুলিশ। অভিযুক্ত সুবীরের বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা রুজু করে তার খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্দারমণি কোস্টাল থানার ওসি রাজকুমার দেবনাথ।  নির্যাতিতা নাবালিকার বাবা শুঁটকি মাছের ব্যবসা করেন৷ বাড়ি রামনগর থানার বালিসাইর বড়রাঙ্কুয়া।

Advertisement
---