নাবালক সহকর্মীর হাতে ‘খুন’ শ্রমিক

প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: নিজেদের মধ্যে বচসার জেরে এক যুবককে খুনের অভিযোগ উঠল এক নাবালকের বিরুদ্ধে৷ ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বানতলা সংলগ্ন চর্মনগরী ৮ নম্বর জোন এলাকায়৷ মৃত শ্রমিকের নাম বুদ্ধিমান সোনওয়ানি(৩৮)৷ নিহতের বাড়ি ছত্তিশগড়ের বিলাসপুরে বলে জানা গিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই এলাকায় একটি চামড়া শোধনের কারখানায় গত দু’বছর ধরে কাজ করছিলেন বুদ্ধিমান। অভিযোগ, রবিবার ছুটির দিনে কারখানার বাইরে একটি ঝুপড়ি দোকানে বসে কয়েকজন সঙ্গীকে নিয়ে মদ্যপান করছিলেন তিনি। মদের নেশায় তাঁর সহকর্মী এক নাবালকের দিদি সম্পর্কে কিছু অশ্লীল কথা বলেন তিনি। তারপরই দু’জনের মধ্যে বচসা শুরু হয়।

অভিযোগ, বচসার সময় ওই নাবালক আচমকা ছুরি বার করে বুদ্ধিমানের পেটে ঢুকিয়ে দেয়। রক্তাক্ত অবস্থায় বুদ্ধিমান মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বুদ্ধিমানকে উদ্ধার করে৷ গুরুতর আহত অবস্থায় বুদ্ধিমানকে ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। কিন্তু সেখানে অস্ত্রোপচার করতে নিয়ে যাওয়া হলে অপারেশন টেবিলেই মৃত্যু হয় ওই শ্রমিকের।

- Advertisement -

এদিকে এই শ্রমিকের মৃত্যুর জেরে এদিন উৎপাদন ব্যহত হয় কারখানায়। কারখানার ম্যানেজার এস ঘোষ বলেন, ‘‘যে কোনও মৃত্যুই দুঃখজনক। ২০০৭ থেকে বানতলায় আমাদের কারখানা চলছে৷ কোনও দিন এই ধরনের ঘটনা ঘটেনি। মৃত শ্রমিকের পরিবারের জন্য কিছু করা যায় কিনা তা খতিয়ে দেখছে কারখানা কর্তৃপক্ষ।’’

আরও পড়ুন: করলা নদীতে বাড়ছে দূষণ!

অন্যদিকে লেদার কমপ্লেক্স থানার তদন্তকারী অফিসাররা জানান, রবিবারে মদ্যপানের জেরে শ্রমিকরা নিজেদের মধ্যে মারামারি করলে এই ঘটনা ঘটে। তবে ওই নাবালক এখানে শ্রমিক হিসাবে এসেছিল নাকি কোনও শ্রমিকের আত্মীয় হিসাবে তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বানতলা চর্মনগরীর মালিক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ইমরান আহমেদ খান বলেন, ‘‘ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা অ্যাম্বুলেন্স করে ছেলেটিকে হাসপাতালে পাঠিয়ে দিই। কিন্তু অনেক চেষ্টা করেও ওকে বাঁচানো যায়নি। এখানে কিছু বহিরাগত যুবক বারেবারে চর্মনগরীতে ঢুকে অশান্তি সৃষ্টি করার চেষ্টা করে। কাজকর্মে বাঁধা দেয়। সেটা আমরা পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েছে।

আরও পড়ুন: ওভারলোডিং ঘিরে রাজ্যে খাদ্য সামগ্রীর সংকটের আশংকা

ঘটনাটি সংগঠনের পক্ষ থেকেও তদন্ত করে দেখা হবে৷’’ ইতিমধ্যেই ওই নাবালক সহকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ এদিকে ঘটনার পর বুদ্ধিমান যে ঘরটিতে থাকতেন সেটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ঘটনার জেরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে বানতলা চর্মনগরী এলাকায়।

Advertisement
---