জল্পনা উড়িয়ে আজই সাতপাকে মিঠুনপুত্র মিমো

চেন্নাই: অবশেষে সাতপাকে মিঠুনপুত্র মিমো৷ তার বিয়ে নিয়ে বিগত বেশ কিছুদিন ধরে যে জল্পনা কল্পনা চলছিল, যে বাধা আসছিল, সেসব সরিয়ে দিয়ে উটিতে বান্ধবীর সঙ্গে মঙ্গলবারই গাঁটছড়া বাঁধতে চলেছেন তিনি৷

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার উটির একটি হোটেলে ঘনিষ্ঠজনের উপস্থিতিতেই শুভকাজটি সেরে ফেলবেন মিমো এবং মাদালসা শর্মা৷

পড়ুন: চুপি চুপি এনগেজমেন্ট সারলেন এই তারকা

গত ৭ জুলাই তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল৷ কিন্তু ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত মিমোর বিয়ের আসরেই হাজির হয় পুলিশ৷ প্রথমে বিয়েতে রাজি হলেও বিয়ে বাড়িতে সকলের সামনে হেনস্থার স্বীকার হতে হয় পাত্রীপক্ষকে। ফলত বিয়ের আসর ছেড়ে চলে যান তাঁরা।

এই আইনি ঝামেলায় বিয়েবাড়ি থেকে পাত্রীপক্ষ চলে যাওয়ার পরও আরও চিন্তা বেড়ে যায় মিঠুনের পরিবারের৷ পুলিশের কথায়, তদন্ত এখনও চলবে৷ বিয়ের আগে মাদালসার মা শিলা শর্মা এ বিষয় মন্তব্য করে বলেছিলেন, “বিয়ে যেদিন ঠিক করা হয়েছে সেই দিনেই হবে৷ ২০১৫ সালে মিমোর সঙ্গে মেয়েটির (অভিযোগকারিনী) দেখা হয়েছিল৷ সেটা আমরা জানতাম৷ মিমো ওর বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ করেছে৷ আর এখন ওই মেয়েটি মুখ খুলল কেন? এতদিন পর? বিয়ের ঠিক কয়েকদিন আগে? এতো অপেক্ষা করার কী ছিল? প্রত্যেকের একটা অতীত থাকে৷ আর আমরা জানি সত্যিটা কী৷”

পড়ুন: বিয়েটা কি হল মিমোর?

প্রসঙ্গত, অভিযোগকারিণীর আইনজীবী রবি সোনি জানিয়েছেন, ”মহাক্ষয় গত ৪ বছর ধরে চেনেন অভিযোগকারিনীকে। মিমো তাঁর উপর যৌন নির্যাতন করেছেন এবং তাঁর সঙ্গে প্রতারণাও করেছেন। তাঁর পানীয়তে ঘুমোর ওষুধ মিশিয়ে তাঁকে ধর্ষণ করেছে মিমো। পাশাপাশি মিমো আমার মক্কেলকে বিয়ের প্রতিশ্রুতিও দিয়ে এসেছিলেন এতদিন। এমনকি বিয়ের জন্য অভিনেতার সঙ্গে আমার মক্কেলের ঠিকুজি কুষ্ঠিও মেলানো হয়। তবে পরে আমার মক্কেলকে বিয়ে করতে পুরোপুরি অস্বীকার করেন মিমো। তিনি সন্তান সম্ভবা হয়ে পড়লে মহাক্ষয় ও তাঁর মা যোগিতা বালি তাঁকে জোর করে গর্ভপাত করায়।”

তবে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে জানা যাচ্ছে, মঙ্গলবার অর্থাৎ আজই মিমো-মাদালসা মালাবদল সেরে ফেলতে চলেছেন৷ গতকাল সংগীত অনুষ্ঠানও নাকি সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে৷