সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা : প্রাকবর্ষার সঙ্গে মৌসুমি বায়ু মিলে দক্ষিণবঙ্গে ফিরেছে স্বস্তির বৃষ্টি। এমনটাই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। আষাঢ়ে টানা ছয় দিন গরম ভোগের পর বুধবার দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে কমবেশি বৃষ্টি হয়েছে। সঙ্গে ছিল ঝোড়ো হাওয়া। এর কারণ প্রাকবর্ষা ও মৌসুমি বায়ুর অল্প ছোঁয়া।

বুধবার সকাল থেকেই দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলির আকাশ মেঘলা ছিল। কিন্তু সাধারণ মানুষ হতাশ ছিলেন। কারণ গত কয়েকদিনেও সকালের দিকে মেঘলা আকাশ থাকলেও বেলার বাড়ার সঙ্গে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে গরম। সঙ্গে ছিল তাপপ্রবাহও।এদিন দক্ষিণবঙ্গের আকাশে জমাট বাঁধা মেঘ আর হতাশ করেনি। সকাল থেকেই বীরভূম, বর্ধমান, হাওড়া, মেদিনীপুর, মুর্শিদাবাদ, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, কলকাতার প্রত্যেক প্রান্তেই বৃষ্টি শুরু হয়। প্রথমে হালকা বৃষ্টি হলেও পরেই বৃষ্টির বেগ বাড়ে। টানা দুপুর পর্যন্ত বৃষ্টি হয়। স্বস্তি ফেরে দক্ষিণবঙ্গে।

Advertisement

অথচ বৃষ্টির কোনও পূর্বাভাস ছিল হাওয়া অফিসের। ছিল না বিশেষ কোনও সতর্কতাও? তাহলে কেন এই বৃষ্টি হাওয়া অফিসের আবহবজ্ঞানিরা জানাচ্ছেন, এর মূলে রয়েছে আবহাওয়ার অদ্ভুত চরিত্র। এদিন দক্ষিণবঙ্গের বাতাসে যেমন প্রাক বর্ষার প্রভাব ছিল। অবস্থান করছিল হালকা মৌসুমি বায়ুর প্রভাবও। দুইয়ের মিলিত প্রভাবে বৃষ্টি হয়েছে বলে জানাচ্ছেন আবহবিদরা। তবে কি মৌসুমি বায়ু আটকে থাকার পর বুধবার থেকেই রাজ্যে নতুন করে প্রবেশ করে গেল? আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, মৌসুমি বায়ু ধীরে ধীরে সক্রিয় হচ্ছে। সেটার অল্প প্রভাব পড়েছে। পুরোপুরি প্রভাব পরতে আরও দিন তিনেক সময় লাগবে। তারপর রাজ্যে নতুন করে শুরু হবে বর্ষার বৃষ্টি।

বুধবার যে বৃষ্টি হয়েছে তা ওই দুই মিশ্র প্রভাবে স্থানীয়ভাবে বেশ কিছু বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরি হয়। সেই মেঘ থেকেই বৃষ্টি। বৃহস্পতিবার থেকে তিন দিন এমন বৃষ্টি বিক্ষিপ্তভাবে হতে পারে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। এর জেরে রোদের তেজ কমবে। তবে যেখানে বৃষ্টি হবে না সেকানে গরম অনুভূত হবে।

এর কারণ কি ? আবহবিদরা জানাচ্ছেন এদিন নতুন করে মৌসুমি বায়ু প্রবেশ করতে শুরু করায় আর্দ্রতার পরিমান ফের বাড়বে। ফলে যখন বৃষ্টি হবে না তখন ঘাম ঝরবে। বুধবার যেমন কলকাতার আর্দ্রতার পরিমান ছিল সর্বোচ্চ ৮৯ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৫১ শতাংশ। এদিন কলকাতায় বৃষ্টি হয়েছে ১৭.৮ মিলিমিটার। তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে কমে এদিন সর্বোচ্চ ৩৬.১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে এসে দাঁড়ায়, যা স্বাভাবিকের চেয়ে তিন ডিগ্রি বেশি। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৯.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে তিন ডিগ্রি বেশি। বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা থাকবে সর্বোচ্চ ৩৬ থেকে সর্বনিম্ন ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে।

----
--