মুখ্যমন্ত্রীকে ‘ফিটনেস’ চ্যালেঞ্জ ছুঁড়লেন প্রধানমন্ত্রী

নয়াদিল্লি: কিছুদিন আগেই ট্যুইটারে নয়া ট্রেন্ড শুরু হয়েছিল। সূত্রপাত করেছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজ্যবর্ধন রাঠোর। এরপর #FitnessChallenge হ্যাশট্যাগে একে অপরকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়তে শুরু করেন। বিরাট কোহলি সেই চ্যালেঞ্জ দিয়েছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। অবশেষে বিরাটের চ্যালেঞ্জ নিয়ে যোগার দক্ষতা দেখালেন প্রধানমন্ত্রী। আর সেইসঙ্গে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন কুমারস্বামীকে।

বুধবার ট্যুইটারে যোগার ভিডিও পোস্ট করেন নরেন্দ্র মোদী। ট্যুইটে লেখেন, “Here are moments from my morning exercises. Apart from Yoga, I walk on a track inspired by the Panchtatvas or 5 elements of nature – Prithvi, Jal, Agni, Vayu, Aakash. This is extremely refreshing and rejuvenating. I also practice breathing exercises (sic).”

আর ভিডিও পোস্ট করে মোদীও চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন। আর তাঁর চ্যালেঞ্জের তালিকায় প্রথমেই নাম রয়েছে কর্ণাটকের নয়া মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীর। সেইসঙ্গে রয়েছেন কমনওয়েলথে সোনাজয়ী টেবিল টেনিস প্লেয়ার মনিকা বাত্রা ও ভারতের সব পুলিশ অফিসারকে, বিশেষত যাদের বয়স ৪০-এর উপর।

মন্ত্রিসভার মন্ত্রী কিংবা নিদেনপক্ষে নিজের দলের কোনও নেতাকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়তে পারতেন মোদী। কিন্তু সবাইকে ছেড়ে হঠাৎ কেন কুমারস্বামীকে বেছে নিলেন, সেটাই রাজনৈতিক মহলের প্রশ্ন। খুব বেশিদিন হয়নি, কুমারস্বামীর সঙ্গে একটা তিক্ত লড়াই হয়ে গিয়েছে বিজেপির। দুই দলের রাজনৈতিক নাটকের সাক্ষী ছিল গোটা দেশ। বিজেপি সরকার গঠনের পরও রাজনৈতিক টানাপোড়েন শেষ হয়নি।

অবশেষে মুখ্যমন্ত্রী পদে আসীন হন জেডিইউ নেতা কুমারস্বামী। শুধু তাই নয়, এই কুমারস্বামীর মুখ্যমন্ত্রিত্বের শপথের মঞ্চে বিজেপি বিরোধী শক্তির উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত। হাজির ছিলেন রাহুল, মমতা, ইয়েচুরি, অখিলেশের মত নেতৃত্ব। সেদিন যে কার্যত মোদী সরকারকেই চ্যালেঞ্জ ছোঁড়া হয়েছিল, সেটা বুঝতে কারও বাকি নেই। তাই পাল্টা হিসেবেই কী মোদী এই চ্যালেঞ্জ ছুঁড়লেন কুমারস্বামীকে? ইঙ্গিত তেমনটাই।

সবটাই শুরু করেছিলেন ক্রীড়ামন্ত্রী রাজ্যবর্ধন রাঠৌর। তাঁর চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে ফিটনেস ট্রেনিংয়ের ভিডিও পোস্ট করেন অলিম্পিক পদকজয়ী ভারতীয় তারকা সাইনা নেহওয়ালও৷ রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোরকে ধন্যবাদ জানিয়ে সাইনা পালটা চ্যালেঞ্জ জানান অভিনেতা রানা দাগ্গুবাতি, সতীর্থ পিভি সিন্ধু ও ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীরকে৷ ওদিকে, হৃত্বিক ক্রীড়ামন্ত্রীর চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে সাইকেল চালিয়ে অফিস যাওয়ার ছবি পোস্ট করেন৷ চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন রোশন পরিবারের দুই সদস্য পিঙ্কি ও রাকেশ রোশনকে৷ পাশাপাশি ফিটনেস চ্যালেঞ্জ দেন দুই বন্ধু টাইগার শ্রফ ও কুনাল কাপুরকেও৷

এরপরই ট্যুইটারে নিজের ফিটনেস ট্রেনিংয়ের একটি ভিডিও পোস্ট করে কোহলি লেখেন, ‘আমি রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোর স্যারের ফিটনেস চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছি৷ এখন আমি একই চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছি আমার স্ত্রী অনুষ্কা শর্মা, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জি এবং এমএস ধোনি ভাইকে৷ এভাবেই চলছিল ফিটনেসে খেলা। কিন্তু মোদী সেই ফিজিক্যাল ফিটনেসকে রাজনেতিক ফিটনেসের পর্যায়ে নিয়ে গেলেন নাকি? তেমনই গন্ধ মিলছে তাঁর ট্যুইটে।

Advertisement
-----