বাজপেয়ীর স্মরণসভায় দিলীপের ঘোষণা, এগিয়ে আছেন মোদীজি!

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর স্মরণসভায় দাঁড়িয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ঘোষণা, নরেন্দ্র মোদী এগিয়ে গিয়েছেন অটলবিহারি বাজপেয়ীর থেকে৷ বাজপেয়ীর স্মরণসভার শেষলগ্নে এসে রাজ্য সভাপতি নিজের সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ধন্যবাদজ্ঞাপন করছিলেন৷

আরও পড়ুন: ‘ডাফলিওয়ালে’র সঙ্গে নাচ! পদ থেকে সরতে হল তৃণমূলের এই নেত্রীকে

নিজের বক্তব্যে মাঝেই, দিলীপবাবুর ব্যাখ্যা, ‘‘অটলবিহারী বাজপেয়ীর উত্তরসূরী নরেন্দ্র মোদী৷ অটলজির দেখানো রাস্তাতেই কাজ করছেন মোদীজি৷ মোদীজি তাঁর (অটলবিহারী বাজপেয়ীর) থেকেও এগিয়ে গিয়েছেন৷ অটলজি (পাকিস্তানের) সীমা পর্যন্ত গিয়েছিলেন, মোদীজি ভিতরে ঢুকে কাজ করে এসেছেন৷’’

- Advertisement -

আরও পড়ুন: মমতাকে ঠেকাতে কুণাল ঘোষই তুরুপের তাস কংগ্রেস-বিজেপির

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর আমলে কারগিল যুদ্ধের কথা দিলীপবাবু ছাড়াও অন্য বক্তারাও উল্লেখ করেছেন৷ কিন্তু কারগিল যুদ্ধের সঙ্গে কেউ মোদী জামানায় পাক অধীকৃত কাশ্মীরের সার্জিকাল স্ট্রাইকের তুলনা করতে যাননি৷ এমনকী বিজেপির জাতীয়স্তরের কোনও নেতাও যে এমনটা করেছেন, তাও শোনা যায়নি৷ সেক্ষেত্রে দুটি সম্পূর্ণ ভিন্ন সেনা অভিযানকে তুলনা করে দিলীপ ঘোষ কি কোনও নতুন বিতর্কের জন্ম দিলেন?

আরও পড়ুন: ‘পার্ক স্ট্রিট থেকে কামদুনি’ হাঁটবে মহিলা কংগ্রেস

প্রশ্ন করতে শুরু করেছেন অনেকেই৷ অনেকেই বলতে শুরু করেছেন, কারগিল যুদ্ধ এবং সার্জিকাল স্ট্রাইকের পরিপ্রেক্ষিতটাই সম্পূর্ণ আলাদা৷ কারগিলে পাহাড় চূড়া থেকে পাক-শত্রুদের উৎখাত করতে ‘অপারেশন বিজয়’ চালু করেছিল সেনা৷ পালানোর পথ ছিল না পাক সেনাদের৷ অন্যদিকে পাক অধীকৃত কাশ্মীরে উগ্রপন্থীদের লঞ্চপ্যাড গুড়িয়ে দেয় সেনা৷

আরও পড়ুন: শুধু দাঁত পরিষ্কার নয়, টুথপেস্ট আর কী কী করে দেখুন

রাজ্যের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠি থেকে এনডিএ সরকারের প্রাক্তন মন্ত্রী সত্যব্রত মুখোপাধ্যায়, সকলেই বাজপেয়ীর আমলে পোখরান-২ এবং কারগিল যুদ্ধের কথা স্মরণ করেছেন৷ তবে রাজ্য সভাপতি সবার থেকেই একটু আলাদা৷

Advertisement
-----