সংসদ শুরুর দিনে প্রণাম, সমাপ্তিতে বিরোধীদের ধন্যবাদ মোদীর

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পাঁচবছর আগে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথমদিনই সংসদভবনের সিঁড়িতে মাথা ঠেকিয়ে দৃষ্টান্ত রেখেছিলেন নরেন্দ্র৷ পাঁচ বছর পর লোকসভার শেষ ভাষণেও দৃষ্টান্ত রেখে বিরোধী এবং দলের নেতাদের ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রী৷ পাশাপাশি অবশ্য নিজের সাবলীল ভঙ্গিমায় রাহুল এন্ড কোং-কে আক্রমণও করলেন৷ দিলেন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিজের পাঁচ বছরের কাছের খতিয়ান৷

গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর কয়েক বছরেই ভারতীয় রাজনীতিতে অন্যতম শক্তিশালী ব্যক্তিত্ব হিসেবে উঠে আসছিলেন নরেন্দ্র মোদী৷ তবে মুখ্যমন্ত্রী থাকার আগে কিংবা ২০১৪ মে মাসের আগে কখনও ভারতীয় পার্লামেন্টে পা রাখেননি তিনি৷ তাঁর আগের দু’জন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ী কিংবা মনমোহন সিং প্রধানমন্ত্রী হওয়ার অনেক আগেই লোকসভা-রাজ্যসভাতে সাংসদ হিসেবে বসেছিলেন৷

- Advertisement -

কিন্তু মোদী দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবেই সংসদে ঢোকেন৷ বিশ্বের সর্ববৃহৎ গণতন্ত্রের সাংবিধানিক বাড়িটিতে পা দেওয়ার আগে নতজানু হয়ে সিঁড়িতে মাথা ঠেকিয়েছিলেন মোদী৷ প্রধানমন্ত্রীত্বের পাঁচবছর পূর্ণ হওয়ার মুখে শেষ লোকসভা ভাষণে বিরোধীদের ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী নরেদ্র মোদী৷

লোকসভায় বিপক্ষে থাকা মল্লিকার্জুন খাড়গের সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যূতে একাধিকবার বিতর্ক হয়েছে মোদী সরকারের মন্ত্রীদের৷ শেষ ভাষণে খাড়গেকে ধন্যবাদ জানান নরেন্দ্র মোদী। পাশাপাশি লালকৃষ্ণ আডবাণী ও খাড়গে এতদিন ধরে সাংসদ হওয়ার পরও দীর্ঘক্ষণ সংসদে বসে থেকে লোকসভার বিতর্ক শোনেন, তাই তাঁদের অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী৷

লোকসভার শেষ ভাষণে খুবই বুদ্ধিদীপ্তভাবে কেন্দ্রে শক্তিশালী সরকারের কথা বলেন নরেন্দ্র মোদী৷ তিনি বলেন, ‘‘বিশ্বে ভারতের গুরুত্ব আগের থেকে অনেক বেড়েছে৷ ৩০ বছর পর কেন্দ্রে শক্তিশালী একক সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার থাকার কারণেই এটা সম্ভব হয়েছে৷ ২০১৪ সালে দেশবাসী যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তারই সুফল এটা৷ রাষ্ট্রসঙ্ঘে বাবা সাহেব আম্বেদকর ও গান্ধীর জন্মজয়ন্তী উদযাপিত হয়েছে৷ খুবই দ্রুততার সঙ্গে আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের প্রস্তাব পাশ হয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘে৷’’