‘নির্বাচনে জয়ের থেকেও ক্লাবের আই লিগ জেতা বেশি গর্বের’

কলকাতা: ‘ক্লাব নির্বাচনে আমি হেরে গেলেও দুঃখ পাবো না, তবে মোহনবাগান আই লিগ জিতুক৷ আমার জয়ের থেকে মোহনবাগানের জয় অনেক বেশি গর্বের৷’ মঙ্গলবার বেঙ্গল ফুটবল ফেস্টিভ্যালের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এমনটাই জানালেন মোহনবাগান সভাপতি স্বপ্ননসাধন বসু৷ ময়দানে যিনি টুটু বসু নামে পরিচিত৷’ সামনেই মোহনবাগান নির্বাচন, তার আগে গরম ময়দানের আবহাওয়া৷ লড়াই যুযুধান দু-পক্ষের৷ প্রাক্তন সবুজ-মেরুন ফুটবলার সুব্রত ভট্টাচার্য এই নির্বাচনে বিরোধী পক্ষের হয়ে দাঁড়িয়ে জল আরও গরম করে দিয়েছেন৷ আগ্রহ এতটাই তুঙ্গে যে, ভিন্ন এক অনুষ্ঠানে এসে কলকাতা পুরসভার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ও বাগান নির্বাচন নিয়ে তাই কথা না বলে পারলেন না৷ তিনি বললেন, ‘মোহনবাগানের মতো ঐতিহ্যবাহী ক্লাবের সদস্য হতে পেরে আমি গর্বিত৷ আমিও ভোট দেব৷’

কলকাতা স্পোর্টস জার্নালিস্ট ক্লাবে হয়ে গেল বেঙ্গল ফুটবল ফ্যাস্টিভ্যালের এক জমকালো সংবর্ধনা অনুষ্ঠান৷ আয়োজক ‘ভিশন বেঙ্গল-২০১৪-১৫’৷ মূলত, ফুটবলকে ঘিরে যাদের দীনযাপন, ফুটবল যাঁদের আষ্টেপিষ্টে রয়েছে, বাংলা ফুটবলের পিছনে যাঁদের অবদান রয়েছে, তাঁদের ঘিরেই এই অনুষ্ঠান৷

টুটু বসু, শোভন চট্টোপাধ্যায় ছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট প্রাক্তন ফুটবলার শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রাক্তন ফিফা রেফারি সাগর সেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক জয়ন্ত চক্রবর্তী, ক্রীড়াসাংবাদিক দেবাশিস দত্ত প্রমুখ৷

- Advertisement -

চারজনকে ‘লাইফ টাইম’ অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়েছে৷ এঁরা হলেন- ফুটবল প্রশাসক টুটু বসু, প্রাক্তন রেফারি সাগর সেন, প্রাক্তন ফুটবলার শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিশিষ্ট সাংবাদিক জয়ন্ত চক্রবর্তী৷ এছাড়া সেরা রেফারির জন্য পুরস্কৃত করা হয়েছে প্রবীর করকে৷ সেরা ফুটবলারের পুরস্কার পেলেন এফসিআই দলের রাকেশ কর্মকার৷ সেরা ভাষ্যকার হয়েছেন বিপ্লব দাশগুপ্ত৷ শুধু ব্যক্তিগত স্তরে নয়, আইএএফ-এর সমস্ত ডিভিশনের চ্যাম্পিয়ন ক্লাবগুলিকে পুরস্কৃত করা হয় এদিন৷

Advertisement ---
-----

Comments are closed.