নয়াদিল্লি: সংসদের বাদল অধিবেশন শুরু হচ্ছে আগামী ১৮ জুলাই। অধিবেশন চলবে আগামী ১০ আগষ্ট পর্যন্ত। প্রায় ১৮ দিন বসবে বাদল অধিবেশন, সোমবার জানিয়ে দিলেন সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অনন্ত কুমার।

সংসদ বিষয়ক দফতরের ক্যাবিনেট কমিটি প্রস্তাব দিয়েছে এবছরের বাদল অধিবেশন শুরু হোক আগামী ১৮ জুলাই, চলুক আগামী ১০ আগষ্ট পর্যন্ত। রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ এই বাদল অধিবেশনে অফিসিয়াল সম্মতি দিলেই তা ঘোষণা করা হবে জানা গেছে।

Advertisement

সংসদ বিষয়ক দফতরের ক্যাবিনেট কমিটির বর্তমান চেয়ারম্যান কেন্দ্র স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। রাজনাথের নেতৃত্বেই সংসদ বিষয়ক কমিটি সোমবার বৈঠকে বসে। এই বৈঠকেই বাদল অধিবেশনের দিন ঠিক করা হয়। অনুমতির জন্য তা পাঠানো হয়েছে রাষ্ট্রপতির কাছে।

এর আগে মার্চ-এপ্রিলে সংসদের বাজেট অধিবেশনে প্রায় ১২৮ ঘন্টা নষ্ট হয়েছে। বিভিন্ন ইস্যুতে সরকার ও বিরোধীদের চরম সংঘাত হওয়ায় লোকসভা ও রাজ্যসভায় অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। লোকসভা অধিবেশন বারবার বন্ধ করতে বাধ্য হন স্পীকার। মাত্র ৩৪ ঘন্টা চলে বাজেট অধিবেশন।

এবারে সংসদের বাজেট অধিবেশন শেষ হয় গত ৬ ই এপ্রিল। বাজেট অধিবেশনে প্রায় প্রতিদিন কোন না কোন ইস্যুতে বিতর্ক লেগেই ছিল। যার জন্য প্রতিদিনই উত্তাল হয়ে ওঠে সংসদ। উপায় না দেখে প্রায় প্রতিদিনই লোকসভা মুলতবি করতে হয় স্পীকারকে। গোটা অধিবেশনে প্রায় ১২৮ ঘন্টা মুল্যবান সময় নষ্ট হয় সংসদে।

বাদল অধিবেশনেও যে খুব শান্তিপূর্ণ ভাবে অধিবেশন চলবে তা আশা করছেন না রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। সামনের বছরে লোকসভা ভোট। এই সময় বিভিন্ন ইস্যুতেই সরকারের বিরোধীতা করবে বিরোধীরা। যে কোন বিল পাশ করতেই বিরোধীদের তুমুল বিরোধীতার মুখে পড়তে হবে সরকারকে। ফলে এই অধিবেশনেও মাঝে মাঝেই উত্তাল হবে লোকসভা, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

এমনিতেই কংগ্রেসের নেতৃত্বে বিজেপি বিরোধী ফেডারেল জোট গড়ে উঠেছে। জোট গড়ার আগেই বিভিন্ন ইস্যুতে লোকসভায় বিজেপি সরকারের বিরোধীতা করেছে বিরোধীরা। সরকারের বিরুদ্ধে একসঙ্গে আন্দোলনেও নেমেছে বিরোধীরা। এখন লোকসভা ভোটকে মাথায় রেখে ফেডারেল জোট আরও শক্তিশালী হয়েছে। তার প্রভাব যে সংসদের বাদল অধিবেশনেও পড়বে তাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

সব মিলিয়ে বাজেট অধিবেশনের মতোই সংসদের বাদল অধিবেশনও যে সরকারের মাথাব্যাথার কারণ হতে যাচ্ছে তা বলাই যায়। বাজেট অধিবেশনে স্পীকারের বারবার অনুরোধ সত্ত্বেও প্রতিদিন মূল্যবান সময় নষ্ট হয়েছে লোকসভা ও রাজ্যসভাতে। বাদল অধিবেশনে সরকার ও বিরোধীরা কতটা ঐক্যমত্য হয়ে কাজ করতে পারেন, সেটাই এখন দেখার।

----
--