স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ব্রিজের নিচে বাংলাদেশীরা থাকে৷ বাংলায় জাতীয় নাগরিকপঞ্জিকরণ বা এনআরসি চালু করার নতুন হেতু পেলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিপীপ ঘোষ৷ বৃহস্পতিবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাংবাদিক বৈঠক সবে শেষ হয়েছে৷ পালটা সাংবাদিক বৈঠকে দিলীপের দাবি, কলকাতায় ব্রিজের নিচে বাংলাদেশী তাড়াতেই এনআরসি জরুরি৷

নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে মমতা জানিয়েছিলেন, ব্রিজের নিচের জায়গা খালি করতে হবে৷ কলকাতা সহ লাগোয়া অলাকায় অন্তত ২০টি ব্রিজের স্বাস্থ্যের হাল বেহাল৷ শুধু মাঝেরহাট ব্রিজই নয়, শিয়ালদহ উড়ালপুল, ঢাকুড়িয়া উড়ালপুল, বিজন সেতু, ব্রেস ব্রিজ সহ আরও অনেক ব্রিজের অবস্থা খুবই খারাপ৷ রাজ্য সরকারের তরফে নাকি পুলিশকে ব্রিজের তলা খালি করার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে৷

Advertisement

পড়ুন: মাঝেরহাট ব্রিজ ভেঙ্গে বিপর্যয় তদন্তে গঠিত সিট

ব্রিজের নিচের অংশ ফাঁকা করার খবর জানার পর দিলীপ বলেন, ‘‘ব্রিজের নিচে বাংলাদেশীরা থাকে৷ এই কারণেই জাতীয় নাগরিকপঞ্জিকরণ চালু করা প্রয়োজন৷’’ প্রসঙ্গত, এনআরসি নিয়ে সম্প্রতি রাসা দেশে কিংবা রাজ্যে জল ঘোলা কম হয়নি৷ অসমে এনআরসির প্রাথমিক রিপোর্টের ভিত্তিতে ৪০ লক্ষ মানুষ সেখানে বেআইনি অনুপ্রবেশকারী৷ ঘটনা জানাজানি হতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরব হয়েছেন৷

রাজ্যে এসে সভা করে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ পালটা বলেছেন, বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলে এনআরসি চালু করা হবেই৷ প্রসঙ্গক্রমে, কিছুদিন আগেই অমিত শাহকে জবাব দিতে মমতা বলেছিলেন, ‘‘অমিত শাহের বাবার সার্টিফিকেট আছে তো?’’ সব মিলিয়ে এনআরসি নিয়ে নরমে গরমে কেন্দ্রের শাসক এবং রাজ্যের শাসকের মধ্যে তরঝা চলছেই৷ তার মধ্যেই দিলীপের এই বক্তব্য উত্তাপ বাড়ালো৷

----
--