বিজেপিতে এসে প্রায়শ্চিত্ত করছি: মোদীকে জানালেন মুকুল

নয়াদিল্লিঃ  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সামনে বাংলার বর্তমান অবস্থার কথা তুলে ধরলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। দুদিন ধরে রাজধানীতে রাষ্ট্রীয় অধিবেশন চলছে বিজেপি। আজ শনিবার ছিল শিবিরের শেষ দিন। আর সেখানেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিনহাকে পিছনে ফেলে মোদীর সামনে বাংলার গণতন্ত্রের ছবিটা তুলে ধরার ডাক পেলেন মুকুল। আর এমন সুযোগের একেবারে সদ-ব্যবহার করে ফেললেন তৃণমূলের প্রাক্তন এই চাণক্য!

ভাষণের শুরুতেই বাংলায় গণতন্ত্র নিয়ে বক্তব্য শুরু করলেন মুকুল রায়। তিনি বলেন, ভারতের পরম্পরা গণতন্ত্র। আর সেই গণতন্ত্রই আজ নেই বাংলায়। তবে তিনি মনে করেন, বিজেপিই ক্ষমতায় আসবে বাংলায়। আর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে।

এই প্রসঙ্গে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রসঙ্গ তোলেন মুকুল রায়। তাঁর বক্তব্য, গুজরাতে ভোট হয়, মধ্যপ্রদেশে ভোট হয় দেশের সর্বত্র ভোট হয়। কিন্তু বাংলার মতো এমন খুনের রাজনীতি হয় না বলে মন্তব্য তাঁর। না থেমেই মুকুল রায় বলেন, বাংলায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে ১০০ কর্মী খুন হয়েছে। যার মধ্যে ৪৮ জনই বিজেপির কর্মী। ফলে বাংলায় গণতন্ত্র কি অবস্থায় রয়েছে এবং কতটা তা ভয়াবহ তা বোঝা যাচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।

সুধু তাই নয়, সমাবেশে বিভিন্ন রাজ্য থেকে আসা নেতা কর্মী এবং মঞ্চে উপস্থিত মোদীর সামনে কীভাবে কেন্দ্রের প্রকল্পের নাম বদলে দেওয়া হচ্ছে সেই বিষয়েও বক্তব্য রাখেন মুকুল রায়। তিনি অভিযোগ করেন, বাংলায় বিভিন্ন কেন্দ্রের প্রকল্পের নাম বদলে দেওয়া হচ্ছে। স্বচ্ছ ভারতের নাম বদলে দেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। একই সঙ্গে আয়ুষ্মান ভারত নিয়েও সরব হন বিজেপির এই হেভিওয়েট নেতা। তিনি বলেন, মোদীর স্বপ্নের আয়ুষ্মান ভারত নিয়ে জুলুমবাজি করছে তৃণমূল।

এখানেই শেষ নয়। মুকুল রায় দাবি করেন যে বিজেপি তাঁর আসা আসলে প্রায়শ্চিত্ত করার সমান। এই প্রসঙ্গে মোদীর সামনেই তিনি দাবি করলেন, তৃণমূলের দলটা তৈরির পিছনে আমি ছিলাম। কিন্তু আজ তা অতীত। শুধু তাই নয়, বিজেপিতে এসে তিনি তার জন্যে প্রায়শ্চিত্ত করছেন বলেও দাবি করেন।

----