মুম্বই : বলিউডের সবচেয়ে ডিমান্ডিং পরিচালকদের মধ্যে একজন রাজকুমার হিরানি৷ তাঁর বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ আনলেন তাঁর মহিলা৷ ‘সঞ্জু’ ছবির পোস্ট প্রোডাকশন চলাকালীন হিরানি সেই মহিলাকে একাধিকবার হেনস্তা করেছেন বলে দাবি করছেন তিনি৷

সেই অভিযোগের জেরে থেমে গেল পরিচালকের আগামী বড়ো প্রজেক্টের কাজ৷ দিন কতক আগেই মুন্নাই ভাই ফ্র্যাঞ্জাইজি নিয়ে গুড নিউজ পেয়েছিল দর্শকরা৷ মুন্না ভাই এবং সার্কিট কে নিয়ে ফের দর্শকের সামনে আসতে চলেছে হিরানি৷

‘লাগে রাহো মুন্না ভাই’র থার্ড পার্ট নিয়েই বাঁধল গোল৷ ছবির কাজ বন্ধ হয়ে গেল হিরানির বিরুদ্ধে আসা যৌন হেনস্তার অভিযোগের কারণে৷ #MeToo মুভমেন্ট নিয়ে রীতিমত গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য CINTAA’য় কয়েক মাস আগে বিশেষ বোর্ড গঠন করা হয়েছে৷

প্রত্যেকের জন্য ইন্ডাস্ট্রিকে সুরক্ষিত করার জন্য সঠিক গবেষণা চালাতে শুরু করে দিয়েছে সেই বোর্ড৷ যার জেরে স্থগিত রাখা হয়েছে বহু সিনেমা৷ সাজিদ খানের ‘হাউজফুল’ থেকে শুরু করে হিরানির ‘মুন্না ভাই’৷ যতদিন না রাজকুমার ক্লিন চিট পাচ্ছেন ততদিন বন্ধ থাকবে ‘মুন্না ভাই থ্রি’র কাজ৷

পড়ুন: ফিয়ন্সেকে বাংলা শেখাচ্ছেন সুস্মিতা, দেখুন ভিডিও

বলিউডে ইদানিং খানিকটা থিতিয়ে গিয়েছে #MeToo মুভমেন্ট৷ ঠিক এমনটাই ভেবে বিনোদন জগতের ফিল্ম, বক্স অফিস কালেকশন নিয়ে মাথা ঘামাতে শুরু করে দিয়েছিল সকলে৷ ঠিক সেই সময় বোমার মতন ফাটলেন রাজকুমার হিরানির একজন অ্যাসিসটেন্ট৷

গত বছরের মার্চ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নাকি চলতে থাকে এই হেনস্তা৷ ‘সঞ্জু’ ছবির কো প্রোডিউসার বিধু বিনোদ চোপড়াকে সেই মহিলা গত বছর নভেম্বর মাসের ৩ তারিখে ইমেল করে প্রতিটি ঘটনা জানান৷ অভিযোগকারিনীর সেই ইমেল চোপড়ার স্ত্রী অনুপমার কাছে পৌঁছয়৷

পড়ুন:  “তোমাকে অর্জুনের আন্টির মতো লাগছে, ওকে বিয়ে করবে কী করে”

নিজের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগে চুপ থাকেননি হিরানি৷ নিজের আইনজীবী আনন্দ দেসাইয়ের মাধ্যমে প্রতিটি অভিযোগ মিথ্যে বলে দাবি করেছেন৷ ইমেলে লেখা রয়েছে, ২০১৮’র ৯ এপ্রিল হিরানি প্রথমবার মহিলাটিকে কুমন্তব্য করেন৷

তারপর হিরানি নিজের অফিসে মহিলার সঙ্গে খারাপ আচরণ ও যৌন হেনস্তা করেন৷ অভিযোগকারিনীর কথায়, “আমি ওনাকে বলেছিলাম যে উনি একজন ক্ষমতাশালী ব্যক্তি বলে এমন আচরণ করতে পারেন না৷ আমি সামান্য একজন অ্যাসিসটেন্ট, তাই কিছু বলতে গেলেই ভয় পাব ভেবেছিলেন উনি৷”

--
----
--